‘ব্রিটিশ ডাক্তাররা যেনো বারবার বাংলাদেশে আসেন’


454 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘ব্রিটিশ ডাক্তাররা যেনো বারবার বাংলাদেশে আসেন’
ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৬ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
শহরতলীর চালতেতলার গর্ভধারিনী মা আমেনা খাতুন চিকিৎসা পেয়ে খুব খুশী। ব্রিটিশ ডাক্তাররা  যেনো এভাবেই আমাদের চিকিৎসা সেবা দেন। তারা যেনো বারবার আসেন বলেও জানালেন তিনি। একই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করলেন কামাননগরের আরেক মা জোলেখা বেগম । তিনি এসেছিলেন তার জরায়ুর জটিলতা নিয়ে । ব্রিটিশ মেডিকেল টীমের সেবা পেয়ে তিনিও দারুন খুশী। জানালেন ‘তাদের ব্যবহার আমাকে মুগ্ধ করেছে।আমি সঠিক পরামর্শ পেয়েছি’।
মঙ্গলবার শহরের ডা. মহাতাবউদ্দিন মেমোরিয়াল হাসপাতালে ফ্রী চিকিৎসা নেওয়ার সময় এসব কথা বলেন তারা । শুধু আমেনা ও জোলেখাই  নন তাদের মতো অন্ততঃ ৬০ জন নারী রোগী এভাবেই বিনা খরচে চিকিৎসা সেবা নেন। দুপুর ১২ টা থেকে টানা সাত ঘন্টার এই চিকিৎসা সেবায় ব্রিটিশ দলের সাথে শিক্ষার্থী হিসাবে আরও অংশ নেন সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের ছয় জন ছাত্র ছাত্রী। তাদেরকে এসব বিষয়ে হাতে কলমে ধারনা দেওয়া হয়। ব্রিটেনে কিভাবে রোগীর সেবা দেওয়া হয় সে সম্পর্কেও প্রশিক্ষন দেওয়া হয় তাদের ।
ফ্রী মেডিকেল চিকিৎসা প্রসঙ্গে ব্রিটিশ চিকিৎসক দল নেতা ডা. রেহানা ইয়াসমিন জামান বলেন ‘ এসব রোগী  নানা কারণে সঠিক ব্যবস্থাপত্র থেকে বঞ্চিত ছিলেন । এতোদিনে তারা যথার্থ পরামর্শও পাননি। এজন্য তাদের শারীরিক জটিলতা দেখা দিয়েছে। ব্রিটিশ চিকিৎসা পেয়ে তারা উপকৃত হতে পারবেন’।ডা. রেহানা জামানের নেতৃত্বে ব্রিটিশ চিকিৎসক দলটি এই চিকিৎসা সেবা দিতে ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প বসান। সাতক্ষীরার প্রবীন চিকিৎসক সাবেক প্রতিমন্ত্রি ডা. আফতাবউজ্জামানের পরিচালনাধীন  ডা. মহাতাবউদ্দিন মেমোরিয়াল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এতে সব ধরনের সহযোগিতা দেন।
এদিকে সফররত ব্রিটিশ মেডিকেল টীমটি  সকালে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থীদের সাথে মিলিত হন।তারা তাদের ব্যাসিক লাইফ সাপোর্ট বিষয়ক নানা কলা কৌশলের ওপর  শিক্ষা দেন।মাতৃ স্বাস্থ্য বিষয়ক ধারনাও দেন তাদের । ডা. রেহানা ইয়াসমিন জামান জানান ‘ আমরা শিক্ষার্থীদের কয়েকটি প্রাকটিক্যাল বিষয়ে ধারনা দিয়েছি’। তিনি জানান ‘ শুধুমাত্র একজন ডাক্তার কিংবা মেডিকেল শিক্ষার্থীই নন , ব্যাসিক লাইফ সাপোর্ট সম্পর্কে প্রত্যেকের একটি ধারনা থাকা দরকার। লন্ডনে স্কুলে পড়াকালীন ছেলেমেয়েদের এসব শিক্ষা দেওয়া হয়। এজন্য কোনো চিকিৎসা সরঞ্জামের প্রয়োজন নেই ’। রাস্তায় জ্ঞান হারিয়ে পড়ে যাওয়া , পানিতে ডুবে যাওয়া , বিদ্যুতস্পৃষ্ঠ হওয়া কিংবা যেকোনো দুর্ঘটনার ব্যাপারে সবার  সচেতন থাকা জরুরি উল্লেখ করে তিনি বলেন ‘ প্রাথমিকভাবে জীবন রক্ষার কলা কৌশল জেনে রাখা সবার জন্য আবশ্যক’।  শিক্ষার্থীদের অল্প সময়ে আমরা যে ধারনা দিয়েছি সে সব বিষয়ে তাদের শিক্ষকদের সাথে আলোচনা করলে তারা অনেক বেশি অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করতে পারবেন বলে জানান তিনি।  তিনি বলেন ‘ ব্রিটেনের চিকিৎসা ও বাংলাদেশের চিকিৎসার মধ্যে যে সব মৌলিক বিষয় রয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করে পারস্পরিক অভিজ্ঞতার বিনিময় করেছি’। তিনি জানান বাংলাদেশের মেডিকেল শিক্ষার্থীরা কিভাবে উচ্চতর  ব্রিটিশ শিক্ষা নিতে পারেন এবং চিকিৎসা বিষয়ক নতুন নতুন উদ্ভাবনের সাথে তারা কিভাবে পরিচিত হতে পারবেন সে বিষয় নিয়েও খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। এতে শিক্ষার্থীরা একটি চমৎকার ধারনা লাভ করেছেন  বলে জানান তিনি।
পরে মেডিকেল  দলটি সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের শিক্ষকদের সাথে এক মত বিনিময় সভায় মিলিত হন। অধ্যক্ষ ডা. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে মত বিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ডা. রুহুল কুদ্দুস,ডা. কামরুজ্জামান, ডা. অমল বিশ্বাস, ডা. হরসিত চক্রবর্তী, ডা. ফখরুল আলম টিটু, ডা. তানিয়া জামান, ডা. সুলেখা ব্যানার্জি প্রমুখ।
ডা. রেহানা ইয়াসমিন জামান জানান তাদের দেওয়া চিকিৎসার ফলো আপ রক্ষার জন্য সাতক্ষীরায় প্রতনিধি ডাক্তার মনোনীত করা হয়েছে। যাতে লন্ডনের ডাক্তারদের  অনুপস্থিতিতে রোগীরা তাদের কাছ থেকে সেবা নিতে পারেন। ব্রিটিশ মেডিকেল টীমটির কার্যক্রম সমন্বয় করেন লন্ডন ভিত্তিক কারুনিতা ইনভেস্টমেন্ট এডভাইসার মো. কামরুজ্জামান রাসেল।  দলটিকে সব ধরনের  পরামর্শ ও সহযোগিতা দিচ্ছেন সাবেক প্রতিমন্ত্রি ডা. আফতাবউজ্জামান। ডা. রেহানার নেতৃত্বাধীন ব্রিটিশ দলটিতে আরও রয়েছেন হেড মিডওয়াইফ নিকোল জেনি স্টিভেনসন, টেরি লিনি ফওলার ও সার্লট অ্যানি গিয়ারিং।
আজ বুধবার দলটি নলতায় ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্পে মায়েদের স্বাস্থ্য সেবা দেবেন । এ ছাড়া নলতা মাতৃ সদনে পরিবার পরিকল্পনা  বিভাগের মাঠ কর্মীদের প্রশিক্ষনও দেবেন তারা।