বড়পুকুরিয়ার কয়লার দাম কমলো


328 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
বড়পুকুরিয়ার কয়লার দাম কমলো
নভেম্বর ৩০, ২০১৫ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :
আন্তর্জাতিক বাজারে কয়লার মূল্য কমে যাওয়ায় দেশের একমাত্র কয়লা খনি বড়পুকুরিয়ার কয়লার দাম টনপ্রতি প্রায় আড়াই হাজার টাকা কমানো হয়েছে।

বর্তমানে ভ্যাট-ট্রাক্সসহ বড়পুকুরিয়ার প্রতি টন কয়লার মূল্য ১৩ হাজার ৬৮০ টাকা। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার থেকে বর্তমান মূল্য কমিয়ে ভ্যাট-ট্রাক্সসহ তা ১১ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

রবিবার (২৯ নভেম্বর) থেকে হ্রাসকৃত মূল্যে কয়লা বিক্রি কার্যকর করা হয়েছে।

খনি কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে দেশের ইটভাটা, বয়লার চালিত শিল্প কারখানা মালিকরা যাতে চাহিদামত কয়লার সরবরাহ পেতে পারে সে লক্ষ্যে কয়লার মূল্য হ্রাস করা হয়েছে। তবে ইটভাটা ও বয়লার চালিত শিল্প কারখানায় জ্বালানি হিসেবে বিক্রির জন্য আমদানী করা কয়লার সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে বড়পুকুরিয়ার কয়লা দাম কমানো হয়েছে বলে খনির অন্য একটি সূত্র জানায়।

কয়লা ব্যবসায়ীদের সূত্র জানায়, গত কয়েক বছরে ইট পোড়ানোর মৌসুমে বড়পুকুরিয়ায় কয়লা উৎপাদন বন্ধ থাকায় এবং ভাটা মালিকদের চাহিদামত কয়লা সরবরাহ করতে না পারায় আমদানী করা কয়লার উপর নির্ভর করতে হয়েছে। গত মৌসুমে ভারত থেকে আমদানী করা নিম্নমানের সালফার মিশ্রিত কয়লা জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করতে বাধ্য হয় ইটভাটা ও বয়লার চালিত শিল্প কারাখানার মালিকরা। এবছর আন্তর্জাতিক বাজারে কয়লার দাম পড়ে যাওয়ায় আমদানীকারকরা ভারত, ইন্দোনেশিয়া, আফ্রিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে কয়লা আমদানী করে দেশের বিভিন্ন স্থানে মজুদ করে তা বিক্রি করছেন। বড়পুকুরিয়ার কয়লার চেয়ে এসব কয়লার দাম প্রতিটনে প্রায় ৬ হাজার টাকা কম হওয়ায় ইট ভাটা মালিকরা জ্বালানি হিসেবে বড়পুকুরিয়ার কয়লা ব্যবহার না করে আমদানী করা কয়লার দিকে ঝুকে পড়েন। আমদানী করা কয়লার দাম কম হওয়ায় এবছর ইট পোড়ানোর ভরা মৌসুম শুরু হলেও বড়পুুকুরিয়ার কয়লা বিক্রিতে তেমন গতি নেই। তাই আমাদানী করা কয়লার দামের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে খনি কর্তৃপক্ষ কয়লার দাম পুনঃনির্ধারনে বাধ্য হয়।

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. আমিনুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, বর্তমানে বড়পুরিয়া কয়লা খনির চত্ত্বরে প্রায় ৩ লাখ মেট্রিক টন কয়লা মজুদ রয়েছে। বড়পুকুরিয়ার উন্নতমানের সালফারমুক্ত এ কয়লা খনি সংলগ্ন কয়লাভিত্তিক বড়পুকুরিয়ার তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ব্যবহারের পরও বিপুল পরিমান বাড়তি কয়লা দেশের ইটভাটা ও বয়লার চালিত শিল্প কারখানায় ব্যবহারের জন্য বিক্রি করা হচ্ছে।