ভারতের সাথে কোনো গোপন সামরিক চুক্তি হচ্ছে না : সাতক্ষীরায় রাশেদ খান মেনন


715 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ভারতের সাথে কোনো গোপন সামরিক চুক্তি হচ্ছে না : সাতক্ষীরায় রাশেদ খান মেনন
মার্চ ২৮, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

রাহাত রাজা/ বি,এম জুলফিকার রায়হান/কামরুজ্জামান মোড়ল ::
‘ভারতের সঙ্গে কোনো গোপন সামরিক চুক্তি হচ্ছে’ বিএনপির এই মন্তব্য প্রত্যাখ্যান করেছেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রি। তিনি বলেন কোনো গোপন চুক্তি নয় বরং প্রকাশ্য সমঝোতা স্বাক্ষর হবে । তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে পশ্চিমবঙ্গ এখনও বাধা হয়ে আছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
রাশেদ খান মেনন মঙ্গলবার বিকালে সাতক্ষীরার তালা উপজেলা  পাটকেলঘাটায় থানার কুমিরা হাইস্কুল মাঠে এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশে জঙ্গি তৎপরতা নিয়ন্ত্রনে আছে মন্তব্য করে মেনন আরও বলেন ঢাকার গুলশানের  হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার পর থেকে জঙ্গি দমনে যে তৎপরতা চলছে তা এখনও অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন তবে তারা ভেতরে ভেতরে এখনও ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে।  রাশেদ খান মেনন বলেন জঙ্গি দমনে রাষ্ট্রীয় কর্মসূচি ছাড়াও রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে ঐকমত্য দরকার। সেই সাথে সামাজিক ও পারিবারিক তৎপরতাও  জরুরি।
তিনি বলেন আগামি ১ এপ্রিল ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আন্তঃদেশীয় পার্লামেন্টারি কনফারেন্স। ৮০ টি দেশের স্পিকার এখানে আসছেন মন্তব্য করে তিনি বলেন দেশে এখন পূর্ন নিরাপদ অবস্থা বিরাজ করছে।  জামায়াত নিষিদ্ধ করন বিষয়ে ওয়ার্কার্স পার্টি প্রধান বলেন ট্রাইব্যুনাল জামায়াত নিষিদ্ধ করার কথা বলেছে। তবে সরকার এখনও এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়নি বলে উল্লেখ করেন তিনি।

জনসভায় তিনি বলেন, জমায়াতের তান্ডব  সাতক্ষীরার মানুষ ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করেছে। জামায়াতিরা সাতক্ষীরাকে অবরুদ্ধ করে রাখলেও জনতা সামনের কাতারে এসে  তাদের প্রতিহত করেছেন। গত এক মাস ধরে জঙ্গিরা বিভিন্ন স্থানে আস্তানা গেড়ে বোমা, অস্ত্র এনে দেশে  অরাজক অবস্থার সৃষ্টি করে দেশকে আফগানিস্তান বানাতে চায়। অনেকের প্রশ্ন মুক্তিযুদ্ধের সরকার আমলে জঙ্গি উত্থান কেনো এমন  প্রশ্ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন বিএনপি জামায়াতের সরকার আমলে উত্তরবেঙ্গে বাংলা ভাই মাথা উঁচু করলেও সে সময়কার সরকার বলেন এটা মিডিয়ার সৃষ্টি।  অথচ সেই বিএনপি জামায়াতকে  সে কথা পরে মেনে নিতে হয়। সিনেমা হলে বিস্ফোরন ও ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমার পর সরকার বাধ্য হয়েছিল বাংলা ভাইদের গ্রেফতার করতে । কিন্তু জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিষ দুর হয়নি। সিলেটে, সীতাকুন্ডে, চট্টগ্রামের মিরেশ্বরাইতে জঙ্গিরা  আবারও মুক্তিকামী মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে।
সকল রাজনৈতিক দলকে  এক হবার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন বিরোধী দল বলছে সরকার নাকি জঙ্গি জঙ্গি খেলা করছে। এই জঙ্গি ও গনহত্যা দিবস উপলেক্ষে তারা কোনো কর্মসূচিই গ্রহন করেনি বলে মন্তব্য করেন তিনি।  তিনি রাষ্ট্রীয় , সামাজিক, পারিবারিকভাবে জঙ্গি বিরোধী কর্মসূচি হাতে নেওয়ার আহবান জানান। ইসলাম জঙ্গিবাদকে সমর্থন করে না মন্তব্য করে তিনি বলেন এদেশে আগমনকারী ওলি আওয়ালিয়ারা ইসলাম প্রচার করে গেছেন। এখন কিছু মানুষের  উস্কানিতে জঙ্গি আক্রমন হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মেনন। বাংলাদেশ খাদ্য উৎপাদনে অনেক দুর এগিেেয়ছে । ২০২১ সালে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিনত হবে।  বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে উঠেছে , এখন শুধু সামনের দিকে যাত্রা । তিনি বলেন বিরোধী দল আবারও যদি আগের মতো নির্বাচনে অংশ না নেয় তা হলে বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে তাদের নাম মুছে যাবে। তিনি বলেন নির্বচন হবে শেখ হাসিনার অধীনে। নির্বাচন হবে নিরপেক্ষ। এতে কোনো সন্দেহ নেই।


তালা কলারোয়া আসনের সংসদ সদস্য জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি সভাপতি এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহর সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য রাখেন দলের পলিট ব্যুরো সদস্য ইকবাল কবির জাহিদ ও  মনোজ সাহা,তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক  ঘোষ সনৎ কুমার, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারন সম্পাদক মহিবুল্লাহ মোড়ল, অধ্যাপক সাব্বির হোসেন, এড. ফাহিমুল হক কিসলু , প্রধান শিক্ষক আবদুর রউফ ও স্বপন কুমার শীল প্রমুখ।  তারা কপোতাক্ষ পুনঃখনন, পাটকেলঘাটা থানাকে  উপজেলা , তালা উপজেলা সদরকে পৌরসভায় উন্নীতকরন এবং সাতক্ষীরায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি জানান। ২০১৩ সাল থেকে জামায়াতের সহিংসতায় আওয়ামী লীগের ১৬ জন হত্যার বিচার দাবি করে তারা বলেন ২০০২ সালে তৎকালিন বিরোধী দলীয় নেতা শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলাকারীদেরও বিচার দাবি করেন তারা। ।

সকালে মন্ত্রি তালা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রশাসনিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সাথে মত বিনিময় করেন। ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক অরুণ কুমার মন্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ,  পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন, তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, নির্বাহী অফিসার ফরিদ হোসেন  প্রমুখ।
সেখানে মন্ত্রি বলেন জঙ্গিবাদ সাম্প্রদায়িকতা  ও মাদক দুরীকরনে সামাজিক ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।
###