ভারী বর্ষন : সুন্দরবন উপকূলীয় শ্যামনগরে পাউবোর বেড়ীবাধের ২শ’স্থানে ভয়াবহ ফাঁটল


698 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ভারী বর্ষন : সুন্দরবন উপকূলীয় শ্যামনগরে পাউবোর বেড়ীবাধের ২শ’স্থানে ভয়াবহ ফাঁটল
আগস্ট ২১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর :
দিনভর টানা বৃষ্টির কারনে সুন্দরবন উপকূলীয় শ্যামনগরের জনপদ পানির নীচে একাকার হয়ে গেছে।শ্যামনগর সদর, ভুরুলিয়া, কাশিমাড়ী, নুরনগর, রমজাননগর, ইশ্বরীপুর ,কৈখালী,মুন্সিগন্জ, বুড়িগোয়ালিনী, গাবুরা ও পদ্ধপুকুর ইউনিয়নের সমস্ত নিম্মান্ঞল প্লাবিত হয়ে পড়েছে।খাল বিল পুকুর,নদী-নালা ভেসে একাকার।

এদিকে,অনেক ঘরবাড়ীতে পানি উঠে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে দরিদ্র অসহায় মানুষেরা। উপজেলা ১২ ইউনিয়নের মধ্যে প্রায় শতাধিক কাচা ঘরবাড়ী ধসে পড়েছে।

রোবাবার সকালে প্লাবিত এলাকার বুড়িগোয়ালিনী ,মুন্সিগন্জ, সদর সহ ঝুকিপুর্ন বেড়ীবাধ পরিদর্শন করেছেন, সাতক্ষীরা- ৪ আসনের এম পি জগলুল হায়দার। এসময় তিনি প্লাবিত মানুষের খোঁজ খবর নেন।তার সাখে ছিলেন,প্রেসক্লাবের সভাপতি জি এম আকবর কবীর।

দুর্যোগপুর্ন আবহাওয়া বিরাজ করায়, ও টানা সারা দিনের প্রবল বর্ষনে দুর্বল পাউবোর বেড়ীবাঁধের ফাঁটল ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। এছাড়া ফাঁটল স্থানে জোয়ারে প্রবল ঢেউয়ের তোড়ে ফাঁটল টি প্রতিনিয়ত  ভয়াবহ আকার ধারন করছে। আর এ কারনে পাউবোর যে কোন স্থান ভেঙ্গে যেতে পারে।

এদিকে সুন্দরবন উপকুলীয় শ্যামনগরের গাবুরা, পদ্ধপুকুর, আটুলিয়া, বুড়িগোয়ালীনি, মুন্সিগন্জ, রমজাননগর, কৈখালী, ও কাশিমাড়ীর ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে  কমপক্ষে ২শ” জায়গায় ভয়াবহ ফাঁটল ধরেছে।  ঝুকিপুর্ন এ ৮ ইউনিয়নের ৩৫ টি গ্রামের সাধারন মানুষ বেড়ীবাঁধ ভাঙ্গন আতংকের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। ঝুকিপুর্ন ৫ / ১৫/ ও ৭/১ নং পোল্ডারের যে সকল স্থান খুবই ভয়াবহ তার মধ্যে রয়েছে,  ১ নং ডিভিশনের গাবুরার পারশেমারি,কালিবাড়ি,নাপিতখালি,সোরা,৯ নং সেরা,চকবারা, বুড়িগোয়ালিনি ইউপির  দাতিনাখালি,পূর্ব দূর্গাবাটি , ভামিয়া, পোড়াকাটলা, বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন, ,  কাশিমাড়ি ইউপির  ঝাপালি,  ঘোলা,  আটুলিয়া ইউপির  বিড়ালক্ষি, মুন্সিগন্জ ইউপি হরিনগর, চুনকুড়ি, সিংহড়তলী, মথুরাপুরজেলে পাড়া, কদমতলা, মুন্সিগন্জ সরদার পাড়া,  কৈখালী ইউ পির পুর্ব কৈখালী, পশ্চিম কৈখালী, নৈকাটি, ও ২ নং ডিভিশনে পদ্মপুকুর ইউপির  চন্ডিপুর,খুটিঘাটা,বন্যতলা,কামালকাটি।

FB_IMG_1470415701744~2

অব্যাহত বৃষ্টির কারনে সুন্দরবন সংশ্লিষ্ট নদী গুলোতে ব্যাপক পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এ কারনে জোয়ারের ঢেউয়ের তোড়ে ঝুকিপুর্ন বাধগুলো যে কোন মুহর্তে ভেঙ্গে যেতে পারে।

শ্যামনগরে পাউবোর দ্বায়িত্বে থাকা নিখিল চন্দ্র জানান, বৃষ্টির কারণে এবং এর আগে পাউবোর বেড়ীবাঁধে ফাঁটল দেখা দিয়েছিল। সে বিষয়টি আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ কে জানিয়েছি।

শ্যামনগর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাফর রানা বলেন, এলাকায় ৩ নং সর্তক সংকেত চলছে। তবে এখন পর্যন্ত বড় ধরনের কোন সমস্যার খবর আমাদের কাছে নেই।

শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ মোঃ মনজুর আলম এর সাথে কথা হলে, তিনি বলেন,উপজেলার ঝাপালী নামক স্থানে পাউবোর বাধ ভেঙ্গে পানি প্রবেশ করছিল।স্থানীয় চেয়ারম্যান ও গ্রামবাসী মিলে ভাঙ্গনকৃত বাধটি আটকাতে সক্ষম হয়েছে।  তবে উপজেলার ১ ও ২ নং ডিভিশনের পাউবোর বাধের বেশ কিছু স্থানে ভয়াবহ ফাটল ধরেছে। তবে বিষয়টি ইতি মধ্যে ডিসি স্যার কে জানানো হয়েছে।

সাতক্ষীরা – ৪ আসনের এম পি জগলুল হায়দার ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানান, টানা বর্ষনে শ্যামনগরে চিংড়ী ও কৃষিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া বৃষ্টি অব্যহত থাকায় এলাকায় তীব্র জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।তিনি বলেন  পাউবোর বেড়ীবাধে ব্যাপক ধ্বস নেমেছে। যে কোন সময় বেড়ীবাধ ভেঙ্গে লোকালয়ে নদীর পানি ঢুকতে পারে। বিষয়টি তিনি সংশ্লিষ্ট পাউবো কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছেন বলে জানান।