ভোমরায় ৮ কোটি টাকার সামুদ্রিক মাছ আটক


1970 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ভোমরায় ৮ কোটি টাকার সামুদ্রিক মাছ আটক
আগস্ট ১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল হক :
সাতক্ষীরার ভোমরায় ৮ কোটি টাকার সামুদ্রিক মাছ আটক করেছে বিজিবি। শুল্ক ফাঁকি দিয়ে কাস্টমসের সীমানা অতিক্রম করলে ভোমরা বিজিবি ১৩ ট্রাক মাছ আটক করে। যারম মূল্য (ট্রাকসহ) ৮ কোটি টাকা। অভিযোগ উঠেছে, কাস্টমসের কতিপয় কর্মকর্তার সহযোগিতায় শুল্ক ফাঁকি দিয়ে ভারতে মাছ  যাচ্ছে এমন সংবাদে বিজিবি তল্লাসী করে আটক তা করে। মাছগুলো ভোমরা ইউপি চেয়ারম্যান ইসরাইল গাজীর মালিকানাধীন সুন্দরবন ট্রেডিং এর মাধ্যমে বাংলাদেশে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে প্রবেশ করছিল। এ ঘটনায় কাস্টমস্ আইন অনুযায়ি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিজিবি সূত্র জানায়, বিজিবি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে ভোমরা ইউপি চেয়ারম্যানের মালিকানাধীন সুন্দরবন ট্রেডিং এর মাধ্যমে বাংলাদেশে বিপুল পরিমাণ সামুদ্রিক মাছ রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে আসছে। এ তথ্যের উপর ভিত্তি করে বিজিবি ভোমরা বন্দরস্থ বাঁশকলের কাছে বিশেষ চেক পোস্ট বসায়। রোববার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বিজিবি চেকপোস্ট দিয়ে সামুদ্রিক মাছ অতিক্রম করার চেষ্টা করলে বিজিবি চ্যালেঞ্জ করে কাগজপত্র পরীক্ষা করে। এ সময় বিজিবি ১৩ টি ট্রাকে থাকা মাছের কাগজপত্র পরীক্ষা করে ৩৭ টন ৬০০ কেজি সামুদ্রিক মাছ পান। এই মাছের বিপরীতে কাস্টমসে ১০-১২ টনের রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে। এ সময় বিজিবি ট্রাকগুলো আটক করে কাস্টমসে জমা দিয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, ভোমরা কাস্টমসের কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী দীর্ঘ দিন থেকে এভাবে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে আসছিলো। এর আগেও রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে পান, মার্বেল পাথর আনা হয়। সে সময় বিজিবি কাস্টমসের দুই কর্মকর্তার নামেও মামলা করে।

ভোমরা বিজিবি’র গোয়েন্দা শাখার (এফএস) আব্দুল করিম জানান, বিজিবি’র বাঁশকলে ১৩টি ট্রাক চেক করে ৩৭ টন ৬০০ কেজি সামুদ্রিক মাছ পাওয়া যায়। যা বিপুল পরিমাণ রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে কাস্টমস অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। ভোমরা ইউপি চেয়ারম্যান ইসরাইল গাজীর সিএন্ডএফ এগুলো আমদানীর সাথে জড়িত। ফলে ইসরাইল গাজীর বিরুদ্ধে কর ফাঁকির অভিযোগ হয়েছে কাস্টমসে।

সর্বশেষ তথ্যে জানাগেছে, অতিরিক্ত মালের জন্য কাস্টমসে জরিমানা দিয়ে মাছ ছাড়িয়ে নেওয়া হয়েছে।