ভয়েস অব সাতক্ষীরায় সংবাদ প্রকাশের পর বন্ধ হলো পারুলিয়ায় নগ্ন নৃত্য


500 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ভয়েস অব সাতক্ষীরায় সংবাদ প্রকাশের পর বন্ধ হলো পারুলিয়ায় নগ্ন নৃত্য
জানুয়ারি ২৫, ২০১৭ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা, দেবহাটা ::
দেবহাটার পারুলিয়ায় যাত্রার নামে নগ্ন নৃত্য, জুয়া ও মদের আসর অবশেষে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বন্ধ হলো। গত শনিবার ও সোমবার ভয়েস অব সাতক্ষীরার প্রধান শিরোনাম ছিল পারুলিয়ার গুচ্ছগ্রামে যাত্রার নামে নগ্ন নৃত্য’র সংবাদ।  সাতক্ষীরার জনপ্রিয় অনলাইন পত্রিকা ভয়েস অব সাতক্ষীরায় সংবাদ প্রকাশের পর তোলপাড় শুরু প্রশাসন মহলে। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অবশেষে বন্ধ হলো ওই অসামাজিক সব কর্মকান্ড।

দেবহাটা উপজেলা পরিষদ ও থানা থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে পারুলিয়া গুচ্ছগ্রাম সাইক্লোন সেন্টার এলাকায় যাত্রার নামে গত ৭/৮ দিন ধরে যুবতীদের দিয়ে নগ্ন নৃত্য, মদ গাজা ও জুয়ার আসর চলছিল। প্রকাশ্যে অসামাজিক এই কাজের বিনিময়ে প্রতিরাতে লুটে নেয়া হচ্ছিল লক্ষাধিক টাকা।

আর অন্যদিকে যাত্রা প্যান্ডেলের পাশে বসছে রামী, তিন গুটি ফ্লাশ, তিন তাস ফড় সহ নানাধরনের জুয়া খেলা ও মদ গাজার আসর দেদারছে চলছিল। এধরনের কার্য্যকলাপের কারনে ঐ এলাকায় প্রতিদিন আইন শৃঙ্খলা পরিপহ্নী কাজ যেমন ঘটছিল তেমনি বিপথগামী হয়ে যাচ্ছিলো উঠতি বয়সের যুবকরা। ঐ এলাকার প্রভাবশালী বর্তমানে পারুলিয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ও ভূমিহীন নেতা মোকরেম শেখ সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের নিকট থেকে মেলা করার অনুমতি নিয়ে স্থানীয় কিছু লোকের সহযোগীতায় এই কাজ করে চলেছে। স্থানীয় প্রশাসন, গনমাধ্যমকর্মী ও রাজনৈতিক নেতাদের ম্যানেজ করে যুবতীদের দিয়ে প্রতিদিনই নগ্ন নৃত্যের আসর চালিয়ে আসছিল বলে অভিযোগ ওঠে। নগ্ন নৃত্য দেখতে দেবহাটা এলাকার পাশাপাশি পাশর্^বর্তী কালীগঞ্জ ও আশাশুনি উপজেলা থেকেও দর্শকেরা ভিড় করতো যাত্রা প্যান্ডেলে। কিন্তু এধরনের কাজগুলো প্রকাশ্যে চললেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ছিল নিশ্চুপ।

গত মঙ্গলবার রাতে এধরনের অসামাজিক কাজের খবর পেয়ে দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, থানার ওসি মামুন-অর রশিদ এবং পারুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম যেয়ে যাত্রা বন্ধ করে দেন। কিন্তু তারপরেই আবার সকলকে ম্যানেজ করে যাত্রা শুরু হয়। এ বিষয়ে প্রথমে গত শনিবার ভয়েস অব সাতক্ষীরায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। ঐদিনই সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মোঃ মহিউদ্দীন ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে বলেছিলেন, পারুলিয়ায় অসামাজিক কর্মকান্ডের খবর তিনিও পেয়েছেন। দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ২ দিন ছুটিতে ছিলেন। রবিবারে মেলা বন্ধ করে দেয়া হবে। অবশেষে ভয়েস অব সাতক্ষীরার প্রকাশিত সংবাদে প্রশাসনে তোলপাড় শুরু হলে সোমবার মেলা স্থলে প্রশাসন অভিযান পরিচালনা করে এবং ওই দিন থেকেই অসামাজিক কর্মকান্ড বন্ধ করে দেওয়া হয়।

স্থানীয় প্রশাসনের এ ধরনের পদক্ষেপ প্রশংসার দাবী রাখে বলে মনে করের দেবহাটার সুধী সমাজ।