মসজিদের ২০ লক্ষ টাকা আত্মসাতকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন


128 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মসজিদের ২০ লক্ষ টাকা আত্মসাতকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন
অক্টোবর ১২, ২০২১ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

সাতক্ষীরার দেবহাটা চারকুনি বাজার জামে মসজিদের ২০ লক্ষ টাকা আতœসাতকারী সাবেক পরিচালনা কমিটির সভাপতি নওয়াব আলী ও সাধারন সম্পাদক মওলানা লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলাবার সকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে উক্ত সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন, চারকুনি গ্রামের ইসমাইল গাজী, দাউদ মোল্লা ও নুরুজ্জামান।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তাদের পক্ষে নুরুজ্জামান বলেন, চারকুনি বাজার জামে মসজিদের সাবেক সভাপতি নওয়াব আলী, সাধারণ সম্পাদক মাওঃ লুৎফর রহমান বিগত ২২ বছর ধরে মসজিদের দায়িত্বে থেকে আনুমানিক ২০ লক্ষ টাকা নিজেরা আত্মসাৎ করেছেন। তারা মসজিদের সাবেক ক্যাশিয়ার আবুল কাশেম মোড়লের কাছে কোন টাকার হিসাব দেননি। টাকা আতœসাতের পর বিগত ২ জুলাই‘২০২১ তারিখে এলাকার সকল মুসল্লি ও গ্রামবাসীদের উপস্থিতিতে নতুন কমিটি গঠিন করা হয়। এই কমিটি গঠনের পর নওয়াব ও একাধিক নাশকতা মামলার আসামী লুৎফরসহ কয়েকজন নানা রকম ষড়যন্ত্র শুরু করেন। তারা বলেন, দেবহাটার উত্তর সখিপুর গ্রামের মাহমুদুল হাসান শাওন ও মোমিনুর রহমান সাতক্ষীরার বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজী ও মাদক সেবনসহ এলাকায় বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত। মোমিনুরের নামে দেবহাটা থানায় চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। তারা বর্তমানে নওয়াব আলী ও মাওঃ লুৎফরের সাথে জোট বেঁধে শান্ত ভূমিহীন জনপদকে অশান্ত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারা আরো বলেন, গত ইং ১২ অক্টোবর সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত একটি দৈনিক পত্রিকায় মুসল্লিদের প্রতিবাদসভা, ভূমিহীন জনপদে মসজিদ নিয়ে ষড়যন্ত্র শিরোনামে ইসমাইলের বিরুদ্ধে মাঠও ঘের দখলের একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট। ইসমাইল ভূমিহীন জনপদের মানুষের অধিকার আদায়ের সবসময় কাজ করে থাকেন। স্থানীয় ইয়াদ আলী ও সাইফুল ওই মাঠটি লীজ নিয়ে নিজেরা ভোগ দখল করে আসছিল। এলাকাবাসী ইসমাইলের নেতৃত্বে ওই মাঠটি অবৈধ দখল থেকে অবমুক্ত করেন। সাংবাদিক পরিচয়ে মাহমুদুল হাসান শাওন ওই মাঠ থেকে ২ বিঘা জমি তার নামে দিতে বলেন। কিন্তু ইসমাইল না দিলে শাওন তার নামে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করেন। ওই মাঠটি অবমুক্ত’র পর ইসমাইলের প্রচেষ্টায় সরকারিভাবে সেখানে ৩ লক্ষ টাকা বরাদ্দ পাওয়া যায় এবং সেখানে উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। এই চক্রটি এখন একত্রিত হয়ে ইসমাইলসহ আমাদের লোকজনকে মিথ্যা মামলায় জড়ানোর ও বিভিন্নভাবে আমাদেরকে জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছেন। অথচ গত কয়েক মাস আগে আমাদের আর জীবন নাশের হুমকি দেবেননা মর্মে তারা দেবহাটা থানায় ৩০০ টাকার নন জুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে লিখিত মোচলেকা দিয়ে আসেন। সংবাদ সম্মেলন থেকে তারা এ সময় শান্ত ভূমিহীন জনপদকে যারা অশান্ত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

#