মসজিদে মসজিদে ইবাদতে মশগুল মুসল্লিরা


86 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মসজিদে মসজিদে ইবাদতে মশগুল মুসল্লিরা
এপ্রিল ২১, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

যথযথ ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারাদেশে পালিত হচ্ছে পবিত্র শবেবরাত।

ফার্সি শব্দগুচ্ছ ‘শবেবরাত’-এর অর্থ ভাগ্যরজনী। শাবান মাসের ১৪ তারিখ রাতটি মুসলিম উম্মাহ পালন করে মহিমান্বিত ভাগ্যরজনী হিসেবে। ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, এ রাতেই পরবর্তী বছরের জন্য ভাগ্য নির্ধারণ করা হয়।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররসহ বিভিন্ন মসজিদে রোববার বিকেল থেকেই জমায়েত হতে শুরু করেছেন মুসল্লিরা। সন্ধ্যার পর শুরু হয়েছে বিশেষ ওয়াজ মাহফিল। রাতব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন হয়েছে মসজিদগুলোতে।

এ রাতে ইবাদত-বন্দেগি, জিকির-আজকার, মিলাদ-মাহফিল, নফল নামাজ আদায় ও কোরআন তিলাওয়াতে মশগুল থাকবেন মুসল্লিরা; মৃত স্বজনের কবর জিয়ারত করবেন তারা।

বায়তুল মোকাররমে রাতে প্রথমে ‘ইবাদত ও দোয়ার গুরুত্ব’ শীর্ষক ওয়াজ মাহফিলে বয়ান করবেন মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মহিউদ্দিন কাসেম। এরপর ‘শবে বরাত ও রমজানের তাৎপর্য’ শিরোনামে ওয়াজ পেশ করবেন মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি মাওলানা এহসানুল হক জিলানী। পরে ‘তাহাজ্জুদের গুরুত্ব ও ফজিলত’ শিরোনামে ওয়াজ করবেন মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান।

শেষে ফজরের নামাজের পর হওয়া আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান।

শবেবরাতের আরবি লাইলাতুল বরাত। ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস- শবেবরাতের রাতে নির্ধারণ হয় পরবর্তী এক বছরের হায়াত, রিজিক, আমল। এ রাতে রয়েছে পাপ মোচনের সুযোগ।

শবেবরাত মুসলমানের কাছে রমজানের বার্তা বয়ে আনে। রমজানের প্রস্তুতি হিসেবে অনেকে রোববার ও সোমবার রোজা রাখবেন। শবেবরাতে সন্ধ্যায় প্রতিবেশী ও দুস্থদের মধ্যে ইফতার এবং হালুয়া-রুটি বিতরণের রেওয়াজ রয়েছে।

শবেবরাত উপলক্ষে সোমবার সরকারি ছুটি। সংবাদপত্র প্রকাশ হবে না। শবেবরাতের পবিত্রতা রক্ষায় রাজধানীতে বিস্ফোরক দ্রব্য, আতশবাজি, পটকা ও অন্যান্য ক্ষতিকারক দ্রব্য বহন এবং ফাটানো নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

গত ৬ এপ্রিল জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় জানানো হয়, সেদিন বাংলাদেশের আকাশে শাবান মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। তবে দু’দিন পর মজলিশু রুইয়াতিল হিলাল নামে একটি সংগঠন ১৭ প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে দাবি করে, ৬ এপ্রিলই চাঁদ দেখা গেছে। বিষয়টি হাইকোর্ট পর্যন্ত গড়ায়। আদালত এতে হস্তক্ষেপ না করার সিদ্ধান্ত জানান। ধর্ম মন্ত্রণালয় গত মঙ্গলবার জানিয়ে দেয়, ২১ এপ্রিল রাতেই পবিত্র শবেবরাত পালিত হবে।