মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত : কুকুরও খাবার পাচ্ছে


156 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত : কুকুরও খাবার পাচ্ছে
এপ্রিল ২৪, ২০২০ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা ॥
করোনা পরিস্থিতিতে ঘর বন্দী মানুষ নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যাচ্ছে না। দোকান বিপনী বিতানের মত যাবতীয় হোটেল ও রেস্তোরাসমুহ বন্ধ দীর্ঘদিন ধরে। খাদ্য সংকটে পড়া নিম্ম আয়ের মানুষ সরকারি বেসরকারি খাদ্য সহায়তা পেয়ে কোন মতে দিন কাটিয়ে দিচ্ছে। মানুষের বাড়িতে পালিত গবাদী পশু ও পাখিদের পর্যন্ত ক্ষুধা নিবারণ হচ্ছে মারিকের বদান্যতায়।

এমতাবস্থায় রাস্তা ও বাজার ঘাটে ঘুরে বেড়ানো বেওয়ারিশ কুকুরগুলো পড়েছে চরম খাদ্য সংকটে। অবলা এসব জানোয়ারের ক্ষুধা নিবারণে নিরবে কাজ করছে শ্যামনগর উপজেলা সদরের দুই ভাই বোন। নিজ বাড়িতে রান্না করা খাবার প্রতিদিন বিকালে কাগজের প্যাকেটে করে উপজেলা সদরের বাদঘাটা, গোপালপুর ও সোয়ালিয়া এলাকার কয়েকটি নির্দিষ্ট স্থানে নিয়ে খাওয়াচ্ছে কুকুরগুলোকে। সংখ্যায় খুব বেশী না হলেও এসব ভিন্ন এলাকাগুলোতে প্রতিদিন তারা প্রায় চল্লিশটিও বেশী খুকুরকে খাদ্য সরবরাহ করছেন বলে জানান বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শেখ আশিক হায়দার।

মহানুভবতার অনন্য দৃষ্টান্ত রাখা আশিক ও তার বোন লিজা জানায়, সব মানুষ কম বেশী খাওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। দোকান ও হোটেল রেষ্টুরেন্ট বন্ধ থাকায় রাস্তার বেওয়ারিশ কুকুরগুলো খেতে না পেরে অসুস্থ হয়ে যাচ্ছে। এটা দেখার পর তারা কয়েকটি পয়েন্টে খাবার সরবরাহ করে অভুক্ত কুকুরগুলোকে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করছে।

এমন উদ্যোগের বিষয়ে সংবাদকর্মী শেখ আফজালুর রহমান বলেন, সরকারি বেসরকারি তৎপরতার কারনে কোন মানুষ অভুক্ত থাকছে না। কিন্তু পরিস্থিতির শিকার হওয়া কুকুরদের খাবার সরবরাহের উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসাযোগ্য।

সবাইকে যার যার অবস্থান থেকে সকল জীবের জন্য কাজ করে যেকোন দুর্যোগময় পরিস্থিতির মোকাবেলা করা উচিত বলে মন্তব্য করেন সংবাদকর্মী জাহিদ সুমন।#