মালয়েশিয়ায় দালালের দ্বারা প্রতারিত বাংলাদেশীর হ্নদরোগে মৃত্যু


134 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মালয়েশিয়ায় দালালের দ্বারা প্রতারিত বাংলাদেশীর হ্নদরোগে মৃত্যু
মার্চ ২, ২০২০ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

শেখ সেকেন্দার আলী, মালয়েশিয়া :

মালয়েশিয়া দালালর প্রতারণায় শিকার বাংলাদেশী হূদরোগে আক্রান্ত হয়ে মোঃ সোহেল (৪২) নামে এক মালয়েশিয়া প্রবাসী কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল পহেলা মার্চ রাত ১২ টায় বুকিতবিন্টাং একটি জেনারেল হাসপাতালে তার এ মৃত্যু হয়।

নিহত মোহাম্মদ সোহেল আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের ধাতুর পহেলা গ্রামের মরহুম ইয়াসিন মাস্টারের বড় ছেলে। সোহেল বেশ কয়েক বছর ধরেই মালয়েশিয়ায় কর্মরত ছিলো। মালয়েশিয়ার একটি থ্রী স্টার রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন। তার কোন বৈধ ভিসা ছিল না। গ্রামের বাড়িতে তার স্ত্রী ও সন্তান রয়েছে।

নিহত সোহেলের রুমমেট ও তার সঙ্গে থাকা এলাকার লোকজন এর লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে জানায়, ঘটনার দিন তার কর্ম ক্ষেত্রে অসুস্থ হয়ে পড়ে তখন কোম্পানির গাড়ি দিয়ে তার রুমে পৌছে দেওয়া হয়। তারপর মোবাইলে স্ত্রীর সাথে দীর্ঘক্ষণ রাত১১ টা ৪৫ মিনিট এ কথা বলতে বলতে হঠাৎ ঢলে পড়ে তখন সহকর্মী রুমমেটরা অচেতন অবস্থায় তাকে নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তার মর্মান্তিক মৃত্যুর সংবাদ প্রবাসী মহল ও তার গ্রামের বাড়িতে পৌঁছার পর শোকের ছায়া নেমে আসে। অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না সোহেল মারা গেছে। তার সহকর্মীরা আরও জানান, সোহেল ভিসার জন্য দালালের কাছে প্রচুর টাকা দিয়েও ভিসা করতে পারেননি প্রতারিত হয়েছিলো। সোহেলের পিতা মরহুম ইয়াসিন মাস্টার অসুস্থ হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি আর্থিক সহযোগিতা দিচ্ছেন না বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়।

এরপর থেকে সোহেল চিন্তায় পড়ে যায়। এদিকে মালয়েশিয়ায় অবৈধ কর্মী হিসাবে পালিয়ে পালিয়ে থাকা ঐ দিকে পারিবারিক চাপে সোহেলের শারীরিক মানসিক স্বাস্থ্য দিন দিন অবনতি হতে থাকে ঠিকমতো নাওয়া খাওয়া করতে পারতেন না নিঃসঙ্গ জীবন কাটাতে শুরু করেন।
তার পিতাকে ভরণপোষণ না দেওয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। সকলেই ধারণা করছে পারিবারিক মানসিক চাপের কারণেই সোহেল অকালে হৃদরোগের আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। সোহেলের লাশ দ্রুত দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা এসোসিয়েশন ও মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন যৌথভাবে কাজ করছে।