মাশরাফি কি উইন্ডিজ সিরিজ খেলবেন


314 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মাশরাফি কি উইন্ডিজ সিরিজ খেলবেন
নভেম্বর ১১, ২০১৮ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হতে আজ আওয়ামী লীগ অফিস থেকে ফরম কিনতে যাচ্ছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও সাকিব আল হাসান। গতকাল দুপুরে এই খবর চাউর হতেই মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সবার কৌতূহলী প্রশ্ন- তাহলে কি ডিসেম্বরে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজটি খেলছেন না এই দু’জন?

উত্তর জানার জন্য অনেকেই ওই দুই তারকার মোবাইলে কল করেন; কিন্তু তাদের সবার ফোন ধরতে পারেননি মাশরাফি ও সাকিব। তবে মধ্যরাতে জানা গেল সাকিব নয়, শুধু মাশরাফিই শেষ পর্যন্ত নির্বাচন করবেন। সাকিবকে খেলা চালিয়ে যেতেই বলেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। গত রাতে গণভবনে দুই ক্রিকেটারের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

মাশরাফির ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র নিশ্চিত করেছেন, যদি নড়াইল-২ আসন থেকে নৌকার প্রার্থী মনোনীত হন মাশরাফি তাহলে হয় তার পক্ষে উইন্ডিজের বিপক্ষে এই আসন্ন সিরিজটি খেলা হবে না। ‘এ মুহূর্তে উইন্ডিজ সিরিজ খেলা না খেলা নিয়ে কোনো ধরনের চিন্তা করছেন না মাশরাফি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি মাশরাফিকে নড়াইল-২ আসনের জন্য মনোনীত করেন তাহলে হয়তো এ সিরিজটি তার পক্ষে খেলা সম্ভব হবে না। কেননা উইন্ডিজের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ৯, ১১ আর ১৪ ডিসেম্বর। তার কিছুদিন পরই ২৩ ডিসেম্বর ভোট। ওই সময় গণসংযোগের জন্য তাকে নড়াইল থাকতে হতে পারে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মাশরাফির এই ঘনিষ্ঠ বন্ধুটি জানান, সব কিছুই নির্ভর করছে মনোনোয়ন পাওয়া না পাওয়ার ওপর। আর এ ব্যাপারে আজ ফরম কেনার পরই অফিসিয়ালি মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলবেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। খেলাধুলার বাইরে নড়াইলে নিজ এলাকায় জনকল্যাণমূলক কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন মাশরাফি। দেড় বছর আগে সেখানে গড়ে তুলেছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান। যার মাধ্যমে ওই এলাকার শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও খেলাধুলার উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন মাশরাফি।

সেক্ষেত্রে মাশরাফি শুধুই ওয়ানডে সিরিজটি মিস করবেন। কেননা টেস্ট তিনি খেলেন না অনেক বছর ধরেই আর টি২০ থেকেও অবসর নিয়েছেন তিনি। কিন্তু সাকিব তো তিন ফরম্যাটেই দলের নিয়মিত সদস্য। ২২ নভেম্বর শুরু হয়ে ২২ ডিসেম্বর শেষ হবে দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে আর তিন টি২০ ম্যাচের উইন্ডিজ সিরিজ। তিনিও মাগুরা-১ আসনে মনোনয়ন পেলে তার পক্ষেও এ সিরিজটি খেলা সম্ভব হতো না।

তবে গত মধ্যরাতে সিদ্ধান্তের পর এ ক্ষেত্রে আর প্রশ্ন রইল না। যদিও আঙুলের চোট থেকে এখনও পুরোপুরি সেরে ওঠেননি তিনি। অস্ট্রেলিয়া থেকে অক্টোবরে অস্ত্রোপচার করে আসার পর আপাতত পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় রয়েছেন তিনি। মেলবোর্ন থেকে ফিরে এসেই সাকিব জানিয়েছিলেন, মাঠে ফেরার কোনো নির্দিষ্ট সময় তাকে বলতে পারেননি চিকিৎসক। তিন মাস কিংবা ছয় মাসও লেগে যেতে পারে তার মাঠে ফিরতে ফিরতে। তবে সাকিব তার ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন জানুয়ারিতে বিপিএল দিয়েই তিনি মাঠে ফিরতে চান।

সেই হিসাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ তার এমনিতেও খেলা হচ্ছে না। তবে মাশরাফি ও সাকিব- দু’জনের ভাবনাতেই রয়েছে আগামী বছর ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপ। এ ব্যাপারে দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গেও নাকি কথা হয়েছে মাশরাফি আর সাকিবের। তাদের থেকেও নাকি ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পেয়েছেন এ দুই তারকা। আগামী ৩০ মে ইংল্যান্ডে শুরু হবে ওই আসর। বিশ্বকাপে খেলা নিয়ে অবশ্য নিজের মধ্যে কোনো সংশয় নেই মাশরাফির।