মিয়ানমারের সেনা সরকারের সঙ্গে আসিয়ানের বৈঠক মঙ্গলবার


123 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মিয়ানমারের সেনা সরকারের সঙ্গে আসিয়ানের বৈঠক মঙ্গলবার
মার্চ ২, ২০২১ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

মিয়ানমারে সহিংসতা রোধ এবং ক্রমবর্ধমান রাজনৈতিক সংকট মোকাবিলায় দেশটির সামরিক বাহিনীর সঙ্গে আলোচনার জন্য দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় (আসিয়ান) দেশগুলির পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বিশেষ বৈঠকের প্রস্তুতি নিয়েছেন। মঙ্গলবার এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

অং সান সু চির নির্বাচিত সরকারকে এক মাস আগে সামরিক বাহিনী অপসারণের পর থেকে মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ এবং রোববার রক্তক্ষয়ী সহিংসতায় ১৮ জন নিহতের পর এই আলোচনা শুরুর ঘোষণা এলো। খবর রয়টার্সের

বড় ধরনের বিক্ষোভের ডাক দিলেও মঙ্গলবার ভোর থেকে ইয়াঙ্গুনের রাস্তা অনেকটা ফাঁকা। কিছু কিছু জায়গায় বিক্ষোভকারীদের প্রতিবাদ জানাতে দেখা গেছে। সহিংসতার কারণে শহরটির বেশ কয়েকটি শপিংমল বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

মিয়ানমারে গত ৮ নভেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পায় এনএলডি। তবে এনএলডি নিরঙ্কশ জয় পেলেও সেনাবাহিনী সমর্থিত দল ইউনিয়ন সলিডারিটি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (ইউএসডিপি) ভোটে প্রতারণার অভিযোগ তুলে ফলাফল মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছিল।

গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে নতুন পার্লামেন্টের অধিবেশন শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে ওইদিন ভোরে স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি ও প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টসহ এনএলডির শীর্ষ বেশ কিছু নেতাকে গ্রেপ্তারের পর এক বছরের জন্য মিয়ানমারে জরুরি অবস্থা জারি করে সেনাবাহিনী। ক্ষমতায় বসেন সেনাপ্রধান জেনারেল মিন অং লাইং।

সেনাবাহিনীর ক্ষমতা গ্রহণের পর গণতান্ত্রিক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর ও গ্রেপ্তার নেতাদের মুক্তির দাবিতে আন্দোলনে নামে সাধারণ মানুষ। তাদের দমন করতে কাঁদুনে গ্যাস ও গুলি ছুড়ছে সেনাবাহিনী। রোববার বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি ছোড়ে দেশটির পুলিশ। এতে নিহত হয়েছেন ১৮ জন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সোমবার ইয়াঙ্গুনে শতাধিক বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ও স্টান গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে এবং পরে রাবার গুলি ছুড়েছে।

সামরিক জান্তার পক্ষ থেকে নতুন নির্বাচনের আশ্বাস দেওয়া হলেও তা নিয়ে অস্পষ্টতা রয়েছে।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল মিন অং লাইং বলেছেন, বিক্ষোভে নেতৃত্বদানকারীরা এবং ‘উস্কানিদাতাদের’ শাস্তি দেওয়া হবে।

যেসব বেসামরিক কর্মচারী কাজ ছেড়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও হুমকি দিয়েছেন তিনি।

মিয়ানমারে জান্তা সরকার ক্ষমতা দখলের পর যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য পাশ্চাত্য দেশগুলি নিন্দা জানিয়েছে ও প্রতিবেশীদের মধ্যে উদ্বেগ বাড়িয়ে তুলেছে।

সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান জানিয়েছেন, মঙ্গলবার ভিডিও কলের মাধ্যমে তারা যখন বৈঠকে অংশ নেবেন তখন তারা মিয়ানমারের সামরিক প্রতিনিধিকে বলবেন যে, তাদের সহিংসতায় তারা হতবাক হয়েছেন।

সোমবার গভীর রাতে একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আসিয়ান সু চি ও জান্তা সরকারকে সংলাপে বসতে আহ্বান জানাবে।

তিনি বলেন, দেশটিতে একদিকে রাজনৈতিক নেতৃত্ব আছে অন্যদিকে সামরিক নেতৃত্বও রয়েছে। তাদের কথা বলা দরকার এবং তাদের একত্রিত করতে আমাদের সহায়তা করা উচিত।