মেসি-বার্সা যুদ্ধ : যেভাবে আইনি লড়াইয়ে জিততে পারেন মেসি


141 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মেসি-বার্সা যুদ্ধ : যেভাবে আইনি লড়াইয়ে জিততে পারেন মেসি
আগস্ট ৩১, ২০২০ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

২০ বছরেরও বেশি সময়ের গভীর সম্পর্কের ইতি টানার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লিওনেল মেসি। বার্সেলোনা ছাড়তে চান এই আর্জেন্টাইন তারকা। বার্সাকে জানিয়ে দিয়েছেন, এই ক্লাবে আর থাকবেন না। দ্রুত চুক্তি বাতিল করে নতুন ঠিকানা খুঁজতে চান আর্জেন্টাইন জাদুকর।

এরপর থেকেই শুরু বার্সা বনাম মেসি ‘যদ্ধ’। যেখানে বার্সা ছাড়ার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর মেসি, অন্যদিকে দলের কিংবদন্তি খেলোয়াড়কে এক চুলও ছাড় দিতে নারাজ কাতালান জায়ান্টরা।
ক্লাব কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যুতে বনিবনা না হওয়ায় বার্সা ছাড়তে চাইছেন মেসি। আর আর্জেন্টাইন অধিনায়কের দাবি, তাকে ফ্রি এজেন্ট হিসেবে ছেড়ে দেওয়া হোক। তবে বার্সা চাইছে ক্লাব ছাড়তে হলে প্রত্যাশী ক্লাবকে রিলিজ ক্লজের ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর বিশাল অংক চুকিয়ে দিতে হবে।

এমন অবস্থায় আইনের দারস্থ হতে পারে দুই পক্ষ। তবে এই আইনি লড়াইয়েই নাকি মেসির জয় হবে। স্পেনের লা রিওহার ‘ল’ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও দ্য আরবিট্রেশন কোর্ট অব লা রিওহার সদস্য হুয়ান রামোন লিয়েবানা বিশ্বাস করেন, মামলায় ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকারই জয় হবে।

বার্সেলোনার অভিযোগ ফ্রি এজেন্ট হিসেবে কোনো রিলিজ ক্লজ ছাড়া মেসিকে ক্লাব ছাড়তে হলে গত ১০ জুন শেষ দিনে জানাতে হতো। তবে মেসি তেমনটি করেননি। ফলে বার্সা এখন তাকে ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ধরে রাখতে পারবে।

কিন্তু বড় ধরনের কারণ দেখাতে পারেন মেসির আইনজীবী। কেননা করোনাভাইরাসের কারণে এবারে ইউরোপ থেকে শুরু করে বিশ্বের প্রায় সব দেশের লিগ ও বহুজাতিক লিগ স্থগিত হয়ে পুনরায় শুরু হয়েছে। ফলে সে সময় ক্লাবকে মেসির জানানোর সুযোগ ছিল না।

১০ জুনের সময়সীমা সম্পর্কে লিয়েবানা ইএফইকে বলেন, ‘এটি ট্রান্সফারের বিষয় ছিল, তবে চুক্তিটি বাতিল করার জন্য কিছু ছিল না।’

লিয়েবানার মতে, চুক্তিটি যদি সুনির্দিষ্টভাবে সেই তারিখটির দিকে নজর দেয় তবে বার্সেলোনা এগিয়ে থাকবে, তবে তা না হলে অনেক ব্যাখ্যা দাঁড়িয়ে যাবে, যেখানে লিও মেসি বিভিন্ন কারণে জিতবে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘লিও মেসির আইনজীবীরা বলতে পারেন যে বার্সা শেষ প্রতিযোগিতা হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ খেলেছিল ২৩ আগস্ট। ফলে তারা চুক্তির একতরফাভাবে সমাপ্তির সময়কাল প্রয়োগ করতে পারে।’