মেয়র সাহেব সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী পৌর দিঘীর এ কী অবস্থা ?


295 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
মেয়র সাহেব সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী পৌর দিঘীর এ কী অবস্থা ?
এপ্রিল ১৫, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরা পৌর দিঘীর এ কী অবস্থা ! দেখে মনে হচ্ছে, এ যেন আবর্জনা ফেলার একমাত্র স্থান। যেন ডাস্টবিন। সাতক্ষীরা পৌর সভার নবনির্বাচিত মেয়র তাসকীন আহমেদ চিশতি সাহেবের কাছে পৌরবাসীর জিজ্ঞাসা, আর কতদিন এভাবে ময়লা-আবর্জনা ফেলার স্থান হিসেবে ব্যবহার হবে সাতক্ষীরা শহরের ঐতিহ্যবাহী পৌর দিঘী ?
গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল বাংলা নববর্ষ। পৌর দিঘীর ঠিক উত্তরপ্রান্তে (পার্কের পাশে) সাতক্ষীরা পৌর আওয়ামী লীগের একাংশ আয়োজন করে বৈশাখির পান্তাভোজ।
পান্তাভোজে ব্যবহার করা হয় প্লাসটিকের অনটাইম প্লেট ও গ্লাস। খানা শেষে ক্ষমতাসীন দলের এসব ক্ষমতধর মানুষগুলো ডাস্টবিন হিসেবে ব্যবহার করলেন পৌর দিঘীকে। ফলে পৌর দিঘীর পানিতে এসব আবর্জনা এখন ভেসে বেড়াচ্ছে। দিঘীর পানি ও পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। কিন্তু কে দেখবে ? কে প্রতিবাদ করবে ?
অথচ প্রতিদিন শত শত মানুষ এই দিঘীতে গোসল করে তাদের তৃপ্তি মিটিয়ে থাকেন। বর্তমানে ময়না আবর্জনায় ভরা এই পানিতেই তাদেরকে গোসল করতে হচ্ছে।
সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক ও সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী পৌর দিঘী দেখভালের জন্য রয়েছে পৌরসভার কমপক্ষে ১০ জন কর্মচারী। তারা মাস গেলেই বেতন নিচ্ছেন, কিন্তু সামান্য এই দায়িত্ব টুকুও পালন করছেন না। সঙ্গত কারণেই প্রশ্ন উঠেছে, এসব কর্মচারীদের রাখার কি বা দরকার রয়েছে ?
পৌরবাসীর প্রত্যাশা, অবিলম্বে এ ব্যাপারে পৌর মেয়র কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। রক্ষা করবেন সাতক্ষীরার ঐতিহ্যবাহী পৌর দিঘীর পরিবেশ।
প্রসঙ্গত, শুক্রবার সকাল থেকেই একাধিক সচেতন ব্যক্তি ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম সম্পাদক এম কামরুজ্জামানের কাছে মুঠোফোনে রিং করেন। তারা বিষয়টি যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষনের জন্য অনুরোধ জানান।