‘যুগোপযোগি পদক্ষেপ গ্রহনের মাধ্যমে দূর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে’


428 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘যুগোপযোগি পদক্ষেপ গ্রহনের মাধ্যমে দূর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে’
মার্চ ১৩, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

মাহফিজুল ইসলাম আককাজ ::
সাতক্ষীরায় দুর্যোগ ঝুকিহ্রাস কর্মপরিকল্পনা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এ সময় তিনি বলেন, সাতক্ষীরা জেলা একটি বড় ধরনের দূর্যোগ প্রবণ এলাকা। তাই শুধু আলোচনা ও কর্মশালা করলে হবেনা। যুগোপযোগি পদক্ষেপ গ্রহনের মাধ্যমে দূর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে। দূর্যোগ দু’ধরনের একটি প্রাকৃতিক আর একটি মানব সৃষ্ট। সুন্দরবনকে রক্ষা করতে পারলে সাইক্লোণের ক্ষতি থেকে জেলা কিছুটা হলেও রক্ষা পাবে। যত্রতত্র অপরিকল্পিত মৎস্য ঘের ও যত্রতত্র নকশা ও অনুমোদন ছাড়া ঘর-বাড়ি আর নির্মান জলাবদ্ধতার মূল কারণ। এই মানব সৃষ্ট দূর্যোগ মোকাবেলা করতে জরুরী পদক্ষেপ নিতে হবে। বড় দূর্যোগ সাইক্লোণ ও জলাবদ্ধতা থেকে সাতক্ষীরাকে বাঁচাতে বাস্তব মুখি কর্মপরিকল্পনা গ্রহন করতে হবে। বৃষ্টির পানি ইছামতি ও সাগরে ফেলতে হবে এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডকে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে’। অনুষ্ঠানের শুরুতে মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা আফসানা কাওসার।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেয়ার বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর জেমি টারজি, ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর সাবেল ফিরোজ, ডিডিএম, ঢাকা উপ-পরিচালক মো. আমিনুল হক প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর লিয়াকত পারভেজ, তালা উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা জি.এম.এ গফুর, জেলা তথ্য অফিসার শাহানওয়াজ করিম, সাতক্ষীরা রেড ক্রিসেন্টের সেক্রেটারী শেখ নুরুল হক, সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. জালাল উদ্দিন, জেলা স্কাউটস্ সম্পাদক এম ইদুজ্জামান ইদ্রিস, পৌর কাউন্সিলর ফারহা দীবা খান সাথী, এন.এ.আর.আর.আই এর কনসোটিয়াম ম্যানেজার নাসের শওকত হায়দার প্রমুখ। দুর্যোগ ঝুঁকি প্রবণ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাতক্ষীরা জেলায় বাংলাদেশ সরকারের ঝঃধহফরহম ঙৎফবৎং ড়হ উরংধংঃবৎ(ঝঙউ) অনুযায়ী জেলার ০৪ টি উপজেলার ৪৯ টি ইউনিয়ন ও ০২ টি পৌরসভা পর্যায়ে জনগোষ্ঠীর ঝুঁকি নিরূপণের (সিআরএ) মাধ্যমে ঘঅজজও(ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ,কেয়ার বাংলাদেশ, কনসার্ন ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ও হ্যান্ডিক্যাপ ইন্টারন্যাশনাল) এবং উবঝঐঅজও(এসিএফ, ড্যান চার্চ এইড, মুসলিম এইড ও ক্রীষ্টান এইড) কনসোর্টিয়াম ও তাদের সহযোগী সংস্থা-উত্তরন, সুশীলন, দুস্থ্য স্বাস্থ্য কেন্দ্র, সিসিডিবি এই কাজে সহায়তা প্রদান করছে বলে মতবিনিময় সভায় জানানো হয়।