যে যাই বলুক ডেঙ্গু পরিস্থিতি খারাপ অবস্থায় আছে : কাদের


83 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
যে যাই বলুক ডেঙ্গু পরিস্থিতি খারাপ অবস্থায় আছে : কাদের
আগস্ট ২, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও সচেতনতামূলক র‌্যালির উদ্বোধনকালে বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের-ফোকাস বাংলা

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যে যাই বলুক দেশের ডেঙ্গু পরিস্থিতি এখন খারাপ অবস্থায় আছে। আমরা ডেঙ্গু নিয়ে উদ্বিগ্ন, লন্ডনে চিকিৎসাধীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দেশের ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে আছেন। সেখানেও তিনি স্বস্তিতে নেই।

শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও সচেতনতামূলক র‌্যালির উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। খবর বাসসের

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসার আহ্বানও জানান ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু মোকাবেলাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছি। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবই। কারণ ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণের বাইরে নয়, এ চ্যালেঞ্জকে মোকাবেলা করার মত শক্তি আমরা রাখি। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সারাদেশে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। এটাই বাস্তব এবং সত্য, এই বাস্তবতাকে অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। এই পরিস্থিতিকে সরকার সিরিয়াসলি নিয়েছে এবং গুরুত্বের সঙ্গে মোকাবেলা করছে। একদিকে সচেতনতা সৃষ্টি করছে, অন্যদিকে এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও সিটি কর্পোরেশন এডিস মশা ও ডেঙ্গু রোগ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিতভাবে কাজ করছে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সরকারের সঙ্গে আওয়ামী লীগও এ্যাকশন প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছে, জনগণও এর সাথে সম্পৃক্ত হয়েছে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ডেঙ্গু অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে আসবে।

তিনি বলেন, মশক নিধনে ব্যবহৃত ওষুধ নিয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে। কার্যকর ওষুধ প্রয়োগে যাতে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আনা যায় এ ব্যাপারে কাজ চলছে। কিছু কিছু ওষুধের নাম এসেছে, যেগুলো ব্যবহারে অন্যান্য দেশে ভাল ফলাফল পাওয়া গেছে। আশা করছি শিগগিরই কার্যকর ওষুধ পাওয়া যাবে। এ ব্যাপারে তিনি সকলকে ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, চিকিৎসার বিষয়েও কোন ঘাটতি নেই। দিন-রাত মানুষকে চিকিৎসাসেবা দেয়ার কাজ চলছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, বিএম মোজাম্মেল হক, বাহাউদ্দিন নাসিম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত ও সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।