রমজাননগর ব্রীজ সংলগ্ন সরকারি জমিতে অবৈধ ভাবে পাকা মার্কেট গড়ার অভিযোগ


453 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
রমজাননগর ব্রীজ সংলগ্ন  সরকারি জমিতে অবৈধ ভাবে পাকা মার্কেট গড়ার অভিযোগ
এপ্রিল ৭, ২০১৭ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ, শ্যামনগর ::

প্রসাশন কে উপেক্ষা করে সরকারী জমিতে বহুতল পাকা মার্কেট নির্মানের কাজ অব্যাহত রেখেছে শ্যামনগর উপজেলার রমজাননগর ইউনিয়নের রমজাননগর গ্রামের গফফার শেখের পুত্র গোলাম ফারুক।

এ কাজ বন্ধের জন্য স্থানীয় সচেতন মহল শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শ্যামনগর ভূমি কমিশনার বরাবর লিখিত আবেদন করে। এক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট তহশীলদার ও সার্ভেয়ার কে সরেজমিনে ব্যবস্থার নির্দেশ দেন, উপজেলা প্রসাশন। তারা সরেজমিনে ঘটনাস্থলে যেয়েই প্রতক্ষ প্রমান পান।

এ অবস্থায় তহশীলদার ও সার্ভেয়ার দুজনই দাড়িয়ে থেকে স্থানীয় গ্রামবাসীদের সহযোগিতায় নির্মিত ওই দোকান ঘর ভেঙ্গে দিয়ে আসেন। কিন্ত তার দু- দিন পর আবারো বহাল তবিয়তে গোলাম ফারুক তার মার্কেটের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। মাদার নদীর চরে রমজাননগর ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় এভাবে প্রকাশ্যে মার্কেট নির্মান করায় স্থানীয় সচেতন মহল হতবাক হয়ে পড়েছেন।

এ ব্যাপারে দায়িত্বরত কৈখালী তহশীলদার রেজাউল ইসলাম জানান, প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তার নির্দেশ পেয়ে আমি ও সার্ভেয়ার দোকান ভেঙ্গে দিয়ে আসছিলাম। তার পরে কি হয়েছে আমার জানা নেই।

এদিকে সার্ভেয়ার রিয়াজুল ইসলাম বলেছেন, দশ হাজার টাকা খরচ করে অবৈধ ভাবে নির্মিত পাকা করন কাজ ভেঙ্গে দেয়া হয়। আমি নিজ বাড়ীতে থাকায় তারপরে কি হয়েছে আমি জানিনা।

এ বিষয়ে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ মোঃ মনজুর আলম জানান, ঘর ভেঙ্গে দেয়াসহ তাকে নিষেধ করা হয়েছে পাকা ঘর নির্মান না করার জন্য। তবে যদি প্রসাশনের নির্দেশ উপেক্ষা করে কেউ পাকা ঘর নির্মান করে, তবে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে সরকারী নিতীমালা অনুযায়ী মামলা হবে। দ্রুত বিষয়টি আইনে আওতায় ও আনা হবে।

এদিকে গোলাম ফারুকের মোবাইল ফোনে একাধিক বার কলকরেও তার কোন সাড়া পাওয়া যায়নী।

##