রাবিতে চুড়ান্ত পরীক্ষায় বসতে পারলো না আইন বিভাগের ৫১ শিক্ষার্থী


326 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
রাবিতে চুড়ান্ত পরীক্ষায় বসতে পারলো না আইন বিভাগের ৫১ শিক্ষার্থী
ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

রাবি প্রতিনিধি :
শতকরা ৬০ ভাগ ক্লাসে উপস্থিতি না থাকায়, একাডেমিক নিময়ানুযায়ি চুড়ান্ত পরীক্ষায় বসতে পারছে না রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়ের আইন বিভাগের প্রথম বর্ষের ৫১ জন শিক্ষার্থী। অপরদিকে ওই বিভাগের বাকী শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হয়েছে।
এদিকে পরীক্ষা দিতে না পারায় বিভাগের সভাপতির কক্ষের সামনে গতকাল রোববার দুপুর ১২টা থেকে আমরণ অনশন ও অবস্থান ধর্মঘট শুরু করে এখনো কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে পরীক্ষা বঞ্চিত ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। অনশনে এ পর্যন্ত ২ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তারা হলেন, প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সুমাইয়া খন্দকার মুমু, আফিফা উন নেশা। তাদেরকে বিশ^বিদ্যালয় মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, পরীক্ষা দিতে না পারায় প্লাকাডের মাধ্যমে তাদের ভুল শিকার করে আমরণ অনশন অব্যাহত রেখেছে এবং একটি বারের জন্য সুযোগ দিতে অনুরোধ করে। ভুলের জন্য শাস্তি চায় কিন্তু তা মৃত্যু নয়, একটি ভুল… প্রথম ও শেষ বারের মতো সুযোগ চায় এ ধরনের বিভিন্ন প্লাকার্ড ব্যবহার করে তাদের আবেদন জানানো হয়।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বললে তারা জানান, প্রথম বছরে নিয়মিত ক্লাস না করে আমরা অনেক ভুল করে ফেলেছি। এই জন্য আমরা লজ্জিত। শিক্ষকদের কাছে আমাদের একটায় দাবি তারা যেন নিজের সন্তান মনে করে আমাদের ভবিষ্যৎ জীবনের কথা চিন্তা করেন।
এ বিষয়ে আইন বিভাগের সভাপতি আবু নাসের মো ওয়াহিদ বলেন, আমরা অত্যন্ত দু:খিত যে, তারা পরীক্ষা দিতে পারছে না। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় আইনের বাইরে কেউ যেতে পারে না। পরীক্ষা একাডেমিকের নিয়মানুযায়ী তারা পরীক্ষা দিতে পারবে না। তাই তাদের এখন উচিত আন্দোলন না করে পড়াশুনায় মনোযোগ দেওয়া।
জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর তারিকুল হাসান বলেন, “আমি খোজ নিয়ে জানতে পেরেছি যারা আন্দোলন করছে তাদের অধিকাংশই ক্যাম্পাসে আসার পরে ক্লাসে উপস্থিত না থেকে বাইরে আড্ডা দিয়েছে  এখন পরিক্ষা  দিতে না পারাই তারা অনশন পালন করছে এটা তাদের জন্য লজ্জার বিষয়। আমি তাদের সরতে বলেছি। তারা না সরলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।
আইন অনুষদের অধিকর্তা বিশ্বজিৎ চন্দ বলেন, “এটা পুরাটাই একাডেমিক সিদ্ধান্ত। তাদের পরীক্ষা দেয়ার সুয়োগ দেয়া হচ্ছে না এটা একাডেমিক কমিটির মিটিং এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনে আছে ৬০ পার্সেন্ট এর কম উপস্থিত হলে কোনো শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে পারবে না”।
বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার যে  আইন রয়েছে তাতে ৭৫ ভাগ উপস্থিত থাকলে একজন শিক্ষার্থীকে কলেজিয়েট বলে গণ্য করা হবে। তবে বিভিন্ন কারণবশত উপস্থিত হতে না পারলে সর্বনি¤œ ৬০ ভাগ উপস্থিত থাকলে জরিমানা সহ তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়া হয়। এক্ষেত্রে ৬০ ভাগ এর কম উপস্থিত থাকলে কোন অবস্থাতেই তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে দেয়া বিশ্ববিদ্যালয় আইনের বাইরে। যেহেতু ৫১ শিক্ষার্থী ৬০ ভাগ উপস্থিত ছিল না তাই তাদের পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না।