রাবি ছাত্রলীগের নতুন ভারপ্রাপ্ত সভাপতির ক্যাম্পাসে মহড়া


353 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
রাবি ছাত্রলীগের নতুন ভারপ্রাপ্ত সভাপতির ক্যাম্পাসে মহড়া
জানুয়ারি ১৭, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

রাবি প্রতিনিধি:
শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানাকে বহিষ্কার করে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে সহ-সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জুকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর রবিবার সকালে নেতাকর্মীদের নিয়ে ক্যাম্পাসে মহড়া দেন রঞ্জু এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খালিদ হাসান বিপ্লবের অনুসারীরা।

রবিবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিছিলটি নিয়ে দলীয় টেন্টে আসলে তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

পরে সেখান থেকে মিছিল নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্কস্তবক অপর্ণ করেন এবং সেখানে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

পরে পুনরায় দলীয় টেন্টে এসে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খালিদ হাসন বিপ্লবের সঞ্চালনায় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত তারা।

এসময় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাঞ্জু বলেন, ‘রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে যদি কেউ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’ তিনি সকল নেতাকর্মীকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে  ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে রাবি ছাত্রলীগকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান।

এছাড়া বিকেল ৩টার দিকে জাতীয় নেতা শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে বলেও সমাবেশ থেকে জানানো হয়।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু, শরিফুল ইসলাম সাদ্দাম, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল গালিব, ছাত্রবৃত্তি বিষয়ক সম্পাদক টগর মোহাম্মদ সালেহ, মানবসম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সাবরুন জামিল সুস্ময়, ছাত্রলীগ নেতা সাকিবুল হাসান বাকীসহ প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মী।

পরে সেখান থেকে মিছিল নিয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনে গিয়ে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে ক্যাম্পাসের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় করেন।

এদিকে রাবি ছাত্রলীগের সদ্য বহিষ্কৃত সভাপতি এম. মিজানুর রহমান রানা ও তার অনুসারীরা শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ত্যাগ করেন বলে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগসূত্রে জানা যায়, দুই গ্রুপের মারামারির জের ধরে রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানাকে শনিবার রাত ৯টার দিকে বহিষ্কার করা হয়। এরপর থেকে অনুগত নেতাকর্মীদের নিয়ে তিনি বঙ্গবন্ধু হলে অবস্থান করছিলেন। শনিবার দিনগত রাত ৩টার দিকে রানা তার পক্ষের নেতাকর্মীদের নিয়ে হল ছেড়ে চলে যান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ ড. আশরাফ উজ্ জামান বলেন, হলের ২২১, ২২২, ২২৪, ২৩২ ও ২৩২ নং রুমগুলোতে মিজানুর রহমান রানা ও তার অনুসারীরা থাকতো। গত রাতে তারা হলা ত্যাগ করে এবং যাওয়ার সময় কিছু জিনিস পত্র বাইরে ফেলে রেখে যায়। এখন রুমগুলো তালাবদ্ধ করে রেখেছে হল কর্তৃপক্ষ। রুমগুলো ছিলগালা করা হবে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ূন কবির জানান, রাবির বঙ্গবন্ধু হল থেকে একটি শর্টগান সদৃশ অস্ত্র পাওয়া গেছে। তবে ওটা অকেজো ছিল।

প্রসঙ্গত, শনিবার বেলা ৩টার দিকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মিজানুর রহমান রানার অনুসারীরা ছাত্রলীগ কর্মী অনিক মাহমুদ বনিকে রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এদিনই রানাকে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বহিষ্কার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের এক জরুরি সভায় বহিষ্কার করা হয়।