রিজেন্ট হাসপাতাল সিলগালা, মালিক পলাতক


173 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
রিজেন্ট হাসপাতাল সিলগালা, মালিক পলাতক
জুলাই ৭, ২০২০ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

করোনাভাইরাস পরীক্ষা না করেই ভুয়া রিপোর্ট দেওয়ায় এবং মেয়াদপূর্তির পরও লাইসেন্স নবায়ন না করাসহ নানা অভিযোগে সিলগালা করে দেয়া হয়েছে ঢাকার উত্তরায় রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয়।

মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৫টায় র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম হাসপাতালটি সিলগালা করেন। তিনি বলেন, রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে সেখানেও অনুমোদনহীন টেস্ট কিট ও বেশ কিছু ভুয়া রিপোর্ট পাওয়া গেছে। এজন্য রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয় সিলগালা করা হয়েছে। এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

তিনি বলেন, রিজেন্ট হাসপাতালটি করোনা টেস্টের স্যাম্পল সংগ্রহ করতো কিন্তু কোনো টেস্ট করতো না। মনগড়া রিপোর্ট দিতো। এছাড়াও হাসপাতালের আইসিইউ অত্যন্ত নিম্নমানের এবং তাদের হাসপাতাল ল্যাবের ফ্রিজে মাছভর্তি। হাসপাতালটির লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হওয়ায় আমরা এটি সিলগালা করেছি।

তিনি জানান রিজেন্ট হাসপাতাল ও গ্রুপের মালিক ও এমডিসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা হবে এবং এর মধ্যে আট জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা হবে। এছাড়া সিআইডিকে মানি লন্ডারিং মামলার জন্য র‌্যাবের পক্ষ থেকে সুপারিশ করা হবে বলেও জানান সারোয়ার আলম।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা নিয়ে এটি দ্বিতীয় কোনো প্রতিষ্ঠান যার বিরুদ্ধে মামলা হলো। এর আগে জেকেজি নামক একটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠার পর আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তার প্রমাণ পেয়ে সেটি বন্ধ করে দিয়েছিল। আটকও করা হয়েছিলো কয়েকজনকে।

৫০ শয্যার এই হাসপাতালটিকে স্বাস্থ্য অধিদফতর অনুমোদন দিয়েছিলো ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে। পরে ২০১৭ সালে মিরপুরেও হাসপাতালটির আরেকটি শাখা খুলে তার অনুমোদন নেয়া হয়। যদিও এসব হাসপাতালের লাইসেন্সের মেয়াদ একবার উত্তীর্ণ হওয়ার পর আর নবায়ন করেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এ দিকে মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অনিয়মের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় মেডিকেল প্র্যাক্টিস অ্যান্ড প্রাইভেট ক্লিনিক অ্যান্ড ল্যাবটরেটরি রেগুলেশন অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী রিজেন্ট হাসপাতালের কার্যক্রম অবিলম্বে বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর পরপরই গত মার্চে রিজেন্ট হাসপাতালকে কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্দিষ্ট করেছিল সরকার।