রেকর্ড রান তুলেই হারল টাইগাররা


90 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
রেকর্ড রান তুলেই হারল টাইগাররা
জুন ২১, ২০১৯ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের গাড় হলুদ রংয়ের জার্সি দূর থেকেই চোখে লাগে। তবে হলুদের সঙ্গে মিল নেই তাদের ডাক নামে। ব্যাগি গ্রিন নামেই পরিচিত তারা। বেঢপ টাইপের সবুজ ক্যাপের জন্য ওই নাম। যদিও ঠিক সবুজ নয় তাদের মাথার ক্যাপটা। ওটা একটা মিথ। গ্রিন শব্দ দিয়ে অজিরা যে চিরন্তন ফেবারিট সেটাই যেন বোঝানো হয়েছে। বিশ্বকাপে কম আলোচনায় থাকা অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশকে ৪৮ রানে হারিয়েছে। প্রমাণ করেছে চিরসবুজ দল তারা। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান তাদের পক্ষেই কথা বলে।

টস জিতে বৃহস্পতিবার ট্রেন্ট ব্রিজে টাইগারদের সামনে এভারেস্ট সমান সুউচ্চ ৩৮২ রানের লক্ষ্য দাঁড় করায় অস্ট্রেলিয়া। ওই রান টপকে জিতলে দুর্দান্ত রকমের ইতিহাস হয়ে যেত। বাংলাদেশ ঠিক তেমন কিছু করে দেখাতে পারেনি। তবে ঠিক আত্মসমর্পণ করেও মাঠ ছাড়েনি। লড়াই করেছে। একটা পর্যায়ে মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ চাপও বাড়িয়েছে অজিদের ওপর। নিজেদের ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৩৩৩ রান তুলেছে স্টার্ক-কামিন্সদের বিপক্ষে। তারপরও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে হেরেছে টাইগাররা। সেমির স্বপ্নে খেয়েছে বড় এক ধাক্কা।

রান তাড়ায় বাংলাদেশ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম হার না মানা ১০২ রানের ইনিংস খেলেন। বিশ্বকাপে তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে সেঞ্চুরি করার কৃতিত্ব গড়েন তিন। এর আগে সাকিব এবং মাহমুদুল্লাহ দুটি করে সেঞ্চুরি আছে। এছাড়া আগে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান ছিল ৩৩০। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওই রান তোলেন সাকিবরা। পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩২৯ ছিল আগের সর্বোচ্চ।

কিন্তু ডেভিড ওয়ার্নারের ১৬৬ রানের সেঞ্চুরির কাছে মুশফিকের সেঞ্চুরি টিকতে পারেনি। মুশফিক তাও ওয়ার্নারের একটা পাল্টা দিয়েছেন। কিন্তু উসমান খাজার ৮৯ রানের পাল্টা কেউ দিতে পারলেন কই। মাহমুদুল্লাহ খেলেন ৬৯ রানের ইনিংস। মুশফিকের সঙ্গে ১২৭ রানের জুটি গড়েন তিনি। ফিঞ্চের ৫৩ রানের জবাব ধরা যেতে পারে তামিমের ৬২ রান। তবে ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দিয়েছে ওয়ার্নারের বড় ইনিংসের পর ম্যাক্সওয়েলের ১০ বলে ৩২ রান।

সেই পাল্টা হয়তো সাকিব আল হাসান বড় একটা ইনিংস খেলে দিতে পারতেন। তবে আগের দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়া সাকিব এ ম্যাচে আউট হন ৪১ রান করে। শেষ দিকে রান বাড়ানোর কাজটা করতে হতো সাব্বির রহমানের। কিন্তু মোসাদ্দেকের বদলে দলে জায়গা পাওয়া সাব্বির এ ম্যাচে গোল্ডেন ডাক মেরে ফেরেন। হারের ব্যবধানটা তাই বেশি ছোট করা যায়নি।