‘লাবসার খেঁজুরডাঙ্গা কবরস্থানের গাছ উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা’


311 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘লাবসার খেঁজুরডাঙ্গা কবরস্থানের গাছ উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা’
আগস্ট ২৪, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার লাবসা ইউনিয়নের খেঁজুরডাঙ্গা  সরকারি কবরস্থান নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। লাবসার খেজুরডাংগাস্থ সার্বজনীন এ কবরস্থানের চারপাশে লাগানো গাছ দুর্বৃত্তরা উপড়ে ফেলেছে। এলাকাবাসী সার্বজনীন এ কবরস্থান রক্ষার জন্য প্রশাসনের নিকট দাবী জানিয়েছেন।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার খেঁজুরডাঙ্গা গেটপাড়া জমে মসজিদের ইমাম আব্দুল গফুরসহ স্থানীয় কয়েকজন জানান, এলাকায় কোন সার্বজনীন কবরস্থান না থাকায় স্থানীয় আসাদুজ্জামান ও আব্দুল মাজেদ সার্বজনীন কবরস্থানের জন্য জমি দান করেন। পরে কবরস্থানের পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩ বিঘা খাস জমিও কবরস্থানের স্থান হিসেবে ঘিরে নেওয়া হয়। এ জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে লিখিত ভাবে অবহিত করা হয়।

২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে তৎকালীন সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এম এ জব্বার কবরস্থানের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন।
সেখানে একটি স্মৃতি ফলকও আছে। সে সময় থেকে কবরস্থানের নাম দেওয়া হয় লাবসা ইউনিয়ন সরকারি কবরস্থান (প্রস্তাবিত)। পাশে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে খেজুরডাংগা গেটপাড়া জমে মসজিদ।

তারা আরও জানান, কবরস্থানে বিভিন্ন সময়ে গ্রামের মিজানুর রহমান, জামাত আলী, ইছাবদি, আমিনুর রহমান ও রেজাউলের ১০ বছর বয়সের পুত্রের দাফন করা হয়। সম্প্রতি কবরস্থানে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগানো হলে শুক্রবার স্থানীয় সাঈদ আলী, দীপংকার, মোস্তাফিজুর রহমান, কণেক, পলাশসহ দুর্বৃত্তরা উপড়ে ফেলে।

স্থানীয় রফিকুল ইসলাম জানান, খেলা করার অজুুহাতে গাছগুলো উপড়ে ফেলা হয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হয়েছে। স্থানীয় অভিযুক্ত পলাশ জানান, আমাদের খেলার মাঠে গাছ লাগানো হয়েছে।
চেয়ারম্যান বিষয়টি দেখছে।

লাবসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম জানান, আমাদের সকলের মরতে হবে। সকলকে কবরস্থানে যেতে হবে। কবরস্থান যেখানে আছে সেখানে থাকবে। অন্যদিকে বাকী যায়গায় স্থানীয় যুবকরা খেলা করতে চাইলে করতে পারবে। তবে এলাকাবাসী কবরস্থানের পবিত্রতা রক্ষার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।