লুটেরা রাজনীতির বিরুদ্ধে কৃষ,শ্রমিক,মেহনতি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে : রাশেদ খান মেনন


353 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
লুটেরা রাজনীতির বিরুদ্ধে কৃষ,শ্রমিক,মেহনতি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে : রাশেদ খান মেনন
নভেম্বর ১২, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুর রহমান মিন্টু / আশরাফুল আলম :
বাংলাদেশ খেতমজুর ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী , বাংলাদেশের ওয়ার্কস পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, ‘কেউ খাবে আর কেউ খাবে না , তা হবে না তা হবে না’। আজ দেশের সর্বত্র দুর্নীতি ছড়িয়ে পড়েছে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে ৭১ সালের মতো আরও একবার যুদ্ধ ঘোষনা করার সময় এসেছে। লুটেরা রাজনীতির বিরুদ্ধে কৃষ,শ্রমিক, মেহনতি মানুষকে আজ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
বাংলাদেশে আইএস আছে এই প্রচার দিয়ে অন্য কাউকে আড়াল করা হচ্ছে  উল্লেখ করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রি মেনন বলেন, দেশি ষড়যন্ত্রকারীদের চিহ্নিত করা হলেও বিদেশিদের চিহ্নিত করা হয়নি। বাংলাদেশে ব্লগার ও বিদেশি হত্যায় জামায়াত জড়িত রয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, বিএনপি তাদের পেছনে থেকে রাজনৈতিক সমর্থন যোগাচ্ছে ।
জঙ্গিবাদ প্রসঙ্গে রাশেদ খান মেনন আরও বলেন, বাংলাদেশকে আজ জঙ্গিবাদি রাষ্ট্রে পরিণত করতে বিদেশি চক্রান্ত চলছে। ক্ষমা করবেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত “ আপনারা বলেন, বাংলাদেশে আইএস রয়েছে”। তাদেরকে ধবংস করতে আপনারা সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়েছেন। কিন্তু মনে রাখবেন, বাংলাদেশে কোন আইএস নেই। এটি আপনাদের অপপ্রচার, গভীর চক্রান্ত। বিধায় আইএস ধবংস করতে অপনাদের কোন সহযোগিতার দরকার হবে না।
বিএনপি ও জামায়াতকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রি বলেন ‘ যারা সংলাপ চান তাদেরকে আগেই  এসব হত্যার দায় স্বীকার করতে হবে এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচার মেনে নিতে হবে। সাকা মুজাহিদের বিচারও ন্যায়সঙ্গত হয়েছে বলে স্বীকার করতে হবে  বলে উল্লেখ করেন তিনি।
রাশেদ খান মেনন আরও বলেন ৫ জানুয়ারির পর থেকে বিএনপি জামায়াত জোট যে তান্ডব করেছে তারপরও বেগম খালেদা জিয়া বিদেশে বসে জাতীয় ঐক্য এবং সংলাপের  ডাক দিচ্ছেন । এতে নাকি সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে । মেনন বলেন বেগম খালেদা জিয়া এ কথা বলে প্রমান করেছেন তারাই সব হত্যার নেপথ্যে রয়েছেন । এখন তারা দেশকে অস্থিতিশীল  করে তুলবার চেষ্টা করেছেন। তিনি বলেন যেসব মুক্তমনা লেখক ও প্রকাশক খুন হয়েছেন তারা কেউই ধর্মের বিরুদ্ধে লেখেননি।

দলীয় প্রতীক নিয়ে স্থানীয় সরকার নির্বাচন হতে যাচ্ছে মন্তব্য করে মেনন বলেন ‘ আইউব সরকার দলীয় প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের ধারা বন্ধ করে দিয়ে মৌলিক গনতন্ত্র চালু করেছিল । শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তিনি বলেন পাটকল ও সুতাকল বন্ধ করা যাবে না ।  শিক্ষকদের এমপিওভুক্তি না হওয়াটা অমানবিক উল্লেখ  করে তিনি বলেন  তাদের দাবি আদায়ে তারা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন ।

 

DSC03963

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে সামাজিক সুরক্ষায় সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ হয়েছে এটা সঠিক । কিন্তু লুটপাট বন্ধ হচ্ছে না। আজ কৃষি ফার্মে শ্রমিকদের অধিকার নেই। শিক্ষকদের অবসরভাতা, কল্যাণ ভাতা নেই। তাদের এমপিও নেই। শ্রমিকরা ভাল নেই। পাটকল, সূতাকল আর বন্ধ করা যাবে না। মিথ্যা কথা বলে যেসব বেসরকারি মালিক পাটকলের লিজ নিয়ে এসে শ্রমিকদের বঞ্চিত করে মুনাফা লুট করছে, তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।
তিনি বলেন, সামান্য ভাতার টাকার ভাগ লুট করে নিয়েযায় জনপ্রতিনিধিরা। আগে গম চুরি হতো, এখন প্রকল্প লুট হয়ে যায়। গ্রামীণ শ্রমজীবী মানুষদের ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার প্রদান করা হয়নি। বিদেশি বন্ধুরা গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য চোখের জল ফেলেন, কিন্তু তাদের যে উৎপত্তিস্থল সেই গ্রামের গরিব শ্রমজীবীদের জন্য তাদের কোনো মায়া লাগে না।

তিনি বৃহস্পতিবার বিকালে সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ খেতমজুর ইউনিয়নের দুই দিন ব্যাপী কেন্দ্রীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ খেতমজুর ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি বিমল বিশ্বাস।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ খেতমজুর ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি অধ্যাপক ইসহাক শরীফ,  সহ সভাপতি মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি, অধ্যাপক নজরুল হক নিলু, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন বাংলাদেশ এর সভাপতি হাফিজুর রহমান ভূঁইয়া, ওর্য়ার্কাস র্পাটরি পলটিব্যুরোর সদস্য ইকবাল কবরি জাহদি,জাতীয় কৃষক সমতিরি সাধারণ সম্পাদক আমনিুল ইসলাম গোলাপ, অধ্যাপক ইয়াসিন আলী এমপি, খেতমজুর ইউনিয়নের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন, নারী মুক্তি সংসদের সাধারণ সম্পাদক সালেহা সুলতানা, টেক্সটাইল গামেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবুল হোসাইন,খেতমজুর ইউনিয়নের সহ-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ কৃষি ফাম শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মজিদ, তৈল গ্যাস জাতীয় সম্পদ রক্ষা কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা জাহাঙ্গীর আলম ফজলু, যুবমৈত্রীর সভাপতি মোস্তফা  আলমগীর রতন,গামেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নেতা মুরশিদ আক্তার নাহার প্রমুখ।
সম্মেলনের আগে গণশিল্পী সংস্থার আয়োজনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠিত হয় আদিবাসী নৃত্য।
সম্মেলনের আয়োজকরা বলেন, ঢাকার বাইরে এই প্রথম কোন কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত হবে কাউন্সিল অধিবেশন। সেখানে দেশের ২৩টি জেলা থেকে কাউন্সিলরা অংশগ্রহন করেছেন।  ইতিমধ্যে সব কয়টি জেলা থেকে কাউন্সিলররা সাতক্ষীরাতে পৌছে গেছেন। শুক্রবার বিকেলে সম্মেলন শেষ হবে।