শঙ্কা মুক্ত নয় শাহিন, জড়িতরা এখনও অধরা


266 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শঙ্কা মুক্ত নয় শাহিন, জড়িতরা এখনও অধরা
জুন ৩০, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

॥ শাহিদুর রহমান ॥

সাতক্ষীরায় দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত ব্যাটারিচালিত ভ্যানের চালক শাহিন মোড়ল (১৪) জীবন সঙ্কটে। ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে রাখা হয়েছে তাকে।

এর আগে শনিবার রাতে অস্ত্রোপচার করা হয় তার মাথায়। তার চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আট সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছে।

মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ও নিউরোসার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. অসিত চন্দ্র সরকার বলেন, ‘শাহিনের চিকিৎসা চলছে। তবে সে আশঙ্কা মুক্ত নয়। মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছে। শনিবার রাতে মাথায় অস্ত্রোপচার করা হয়েছে তার।’

শুক্রবার সকালে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানা এলাকায় যাত্রীবেশে দুর্বৃত্তরা হাতুড়ি দিয়ে শাহিনের মাথায় আঘাত করে ছিনিয়ে নিয়ে যায় তার ব্যাটারিচালিত ভ্যান। রোববার রাত ৮টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সেই ভ্যানটি উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। শনাক্ত কিংবা গ্রেফতার করতে পারেনি জড়িতদেরও।

পাটকেলঘাটা থানার ওসি রেজাউল ইসলাম জানান, ‘ধারণা করা হচ্ছে দুর্বৃত্তরা হাতুড়ি দিয়ে শাহিনের মাথায় আঘাত করেছে। ছিনতাই হওয়া ভ্যানটি উদ্ধার এবং জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্ট চলছে।’

শাহিনের চাচা মুনসুর আলী মোড়ল জানান, শাহিনের বাবা হায়দার আলীও ভ্যান চালক। তাদের বাড়ি যশোরের কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট গ্রামে। তারা হতদরিদ্র। ঋণ নিয়ে ব্যাটারি চালিত ভ্যানটি কিনে বাবা-ছেলে পালাক্রমে চালায়। শুক্রবার সকালে কেশবপুর থেকে ৪ জন যাত্রী শাহিনের ভ্যানে ওঠে সাতক্ষীরার ধানদিয়ায় যাওয়ার কথা বলে। তাদের নিয়ে ধানদিয়া কৃঞ্চনগর আমজামতলা নামক স্থানে পৌঁছালে যাত্রীবেশে দুর্বৃত্তরা চলন্ত অবস্থায় শাহিনে মাথায় কোপাতে থাকে। এক পর্যায়ে অচেতন হয়ে রাস্তায় পড়ে যায় সে। এরপরই তার ভ্যানটি নিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা এবং শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়। এ বিষয়ে শনিবার শাহিনের বাবা বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানায় একটি মামলা করেন।