শর্তসাপেক্ষে আ’লীগ-বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি ডিএমপির


304 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শর্তসাপেক্ষে আ’লীগ-বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি ডিএমপির
জানুয়ারি ৪, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডেস্ক :
৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে শর্তসাপেক্ষে রাজধানীতে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

সোমবার ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মারুফ হোসেন সর্দার সমকালকে এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওইদিন বেলা ২টা থেকে ৫টার মধ্যে আওয়ামী লীগকে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এবং বিএনপি নয়া পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ শেষ করতে হবে।

পুলিশ কমিশনার মো.আছাদুজ্জামান মিয়া নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের জানান, কয়েকটি শর্তে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে নিজেদের দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

সমাবেশের শর্তগুলো হলো- নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সমাবেশ শেষ করতে হবে, নির্ধারিত এলাকার বাইরে মাইক ব্যবহার করা যাবে না, সমাবেশ করতে গিয়ে রাস্তাঘাট আটকে যানজট তৈরি করা চলবে না, ফেস্টুন-ব্যানারের আড়ালে লাঠি বা কোনো ধরনের অস্ত্র বহন করা যাবে না, পুলিশের বেঁধে দেওয়া চৌহদ্দির মধ্যেই সমাবেশ সীমিত রাখতে হবে, মিছিল করে সমাবেশে আসা যাবে না।

পুলিশ কমিশনার জানান, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি যার যার দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি চাওয়ায় পরিস্থিতি যাচাই করে পুলিশের পক্ষ থেকে সমাবেশের এই অনুমতি দেওয়া হয়।

এর আগে দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকেও দুই দলকে নিজ নিজ কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমিত দেওয়া হয়। নগর ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিএসসিসির মেয়র সাঈদ খোকন।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে ৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ দাবি করে ওইদিন রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ সারা দেশে সমাবেশ করার ঘোষণা দেন ব্নিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপির ওই ঘোষণার পরপরই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেও একই স্থানে কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়। সরকারের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিকে ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ হিসেবে উদযাপনের জন্য ওইদিন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের ঘোষণা দেয় আওয়ামী লীগ। দুই দলের কর্মসূচি নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

পরে রোববার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম হানিফ জানান, সোহরাওয়ার্দী না পেলে নিজ দলের কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি চাইবেন তারা।

একইদিন সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী জানান, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে না হলে ৫ জানুয়ারি নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে সমাবেশ করতে চায় বিএনপি।