শীতে ঠোঁটের যত্নে


166 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শীতে ঠোঁটের যত্নে
জানুয়ারি ২২, ২০২০ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

চলছে শীতের মৌসুম। এই শীতে ঠোঁটে চাই বাড়তি যত্ন। আমাদের ত্বক যেমনই হোক, শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের ত্বক রুক্ষ হতে থাকে। আর এই প্রভাব থেকে মুক্তি পায় না আমাদের ঠোঁটও। দেখা যায় ঠোঁটকে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে। এর ফলে আমাদের ঠোঁট ফেটে যায়, রুক্ষ হয়ে যায়, ঠোঁটের চামড়া উঠে যায় এবং ঠোঁটের ন্যাচারাল কালার হারিয়ে যায়। কড়া রোদে দীর্ঘ সময় থাকা, পানিশূন্যতা, গর্ভাবস্থা, বছরের পর বছর রাত জেগে থাকা, সঠিক সময়ে পুষ্টিকর খাবারের অভাব, ব্র্যান্ডহীন কোম্পানির মাত্রাতিরিক্ত হারে প্রসাধনী ব্যবহার করা প্রভৃতির জন্য ঠোঁট কালো হতে পারে। শীতের সময়ই ঠোঁটের যত্ন নেওয়াটা একটু বেশিই দরকার। এই সময় ঠোঁট ফাটা থেকে শুরু করে ঠোঁটের নানাবিধ সমস্যা দেখা দেয়। তাই এই শীতে আপনার ঠোঁটে চাই বাড়তি যত্ন।

শীতের আগমনধ্বনি কি শুধুই প্রকৃতিতে আর নাগরিক কোলাহলে? মোটেও না। শীতের আগমন মানেই বাংলাদেশের প্রসাধনসামগ্রীর বাজারে বেশ বড় একটা সাড়া। শীতের শুস্কতা থেকে ত্বক রক্ষা করতে এই মৌসুমে যে নিদেনপক্ষে পেট্রোলিয়াম জেলি বা কোল্ড ক্রিম কিনতেই হয়!

শীতে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ে ঠোঁটের ওপর। তাই ঠোঁটের সুরক্ষায় পেট্রোলিয়াম জেলি ছাড়া কি চলে! নারী-পুরুষ নির্বিশেষে লিপজেল বা লিপবাম তো লাগে সবারই। বাংলাদেশি প্রসাধনী প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কোহিনূর কেমিক্যালসের ব্র্যান্ড তিব্বতের পণ্যই বেশি জনপ্রিয়। সেই জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে বিজ্ঞাপনে টিভি পর্দা, বিলবোর্ড বা পত্রিকার পাতায়, এমনকি এফএম রেডিওতেও শীতকাল এলেই বাড়ে পণ্যের গুণগান। তিব্বত লিপজেলের বিজ্ঞাপনে বিদ্যা সিনহা মীমের উচ্ছল হাসিও পর্দা থেকে চোখ সরাতে দেয় না। পণ্য হিসেবে লিপজেলটা বেশ আধুনিক। বারবার ব্যবহারের প্রয়োজন পড়ে বলে প্যাকেজিংটা সেভাবে। তবে শীতে ত্বকের পরিচর্যায় সবচেয়ে বহুল ব্যবহূত পণ্য বোধ হয় স্নো আর পমেড। দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশে নাগরিক জীবনে না হলেও গ্রামীণ জীবনে নারীদের রূপচর্চার অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ এই স্নো আর পমেড। আর স্নো, পমেডের জন্য সবচেয়ে বিখ্যাত তিব্বত। সাদা কোল্ড ক্রিমের মতো স্নো এবং কমলালেবুর সুবাসযুক্ত কমলা রঙের পমেড একটা সময় দেখা যেত ঘরে ঘরেই। বাংলাদেশে প্রসাধনী শিল্পের বিকাশের শুরুর দিক থেকেই উৎপাদন চলছে এই দুটি পণ্যের। বাজারে আরও হাজারো আধুনিক পণ্যের ভিড়েও হারিয়ে যায়নি তিব্বত স্নো ও পমেড। বরং শহুরে বাজার ধরতেই নতুন ও আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপনে তারা হাজির হয়েছে নানা মাধ্যমে। এরই একটিতে শশীকে দেখা যায় তিব্বত পমেড মেখে রেডিও জকি হিসেবে নাম কুড়াতে, চমৎকার লোকেশনে শায়না আমিন নানা শরীরী বিভঙ্গে ফুটিয়ে তোলেন তিব্বত পমেড মাখার সার্থকতা! তিব্বত স্নোর মডেলে রূপের শোভা ছড়িয়েছেন হালের জনপ্রিয় সব চিত্রনায়িকাই। মৌসুমী, কেয়া, নিপুণ- সবাই ক্যামেরার সামনে ফাঁস করেছেন রূপের রহস্য। সেটা আর কিছুই নয় তিব্বত স্নো। সম্প্রতি ঢালিউডের সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাসও মডেল হয়েছিলেন তিব্বত স্নোর।

তিব্বত কোল্ড ক্রিমের বিজ্ঞাপনগুলোতে প্রায়ই দেখা যেত সুন্দরী কোনো মডেল ঘুরে বেড়াচ্ছেন কোনো শৈল শহরে হিমেল পরিবেশে বা বরফের রাজ্যে উচ্ছলতায়। তবে ধীরে ধীরে বদলাতে থাকে বিজ্ঞাপনের ভাষাও। ত্বকের যত্ন নেওয়ার সঙ্গে পরিবারের উষ্ণতা আর মমত্ববোধের সম্পর্কের সমীকরণে ছাপ আসে গল্পে। এই শীতে আপনার ঠোঁটের যত্নে ভরসা রাখতে পারেন তিব্বত পমেডের ওপর।