শ্যামনগরের বুড়িগোয়ালিনীর প্রধান সড়কটির বেহাল দশা


308 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরের বুড়িগোয়ালিনীর প্রধান সড়কটির বেহাল দশা
আগস্ট ১৭, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর :
সাতক্ষীরার দক্ষিন পশ্চিমে  অবস্থিত দেশের সর্ব বৃহৎ উপজেলা হলো শ্যামনগর। কালিন্দা, খোলপেটুয়া, আড়পাঙ্গাসিয়া, মাদার নদী,যমুনা, চুনা সহ একাধিক নদী বিজড়িত শ্যামনগরের উন্নয়ন বহাল তবিয়্যাতে এগিয়ে চলেছে। শ্যামনগরের চার লক্ষ মানুষের একাধিক প্রানের দাবী ইতিমধ্যে পুরন হয়েছে। বাকীগুলো প্রক্রিয়াধীন বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তার আভাস মিলেছে।

শ্যামনগর থেকে মুন্সিগন্জ ও মুন্সিগন্জ থেকে বুড়িগোয়ালিনী পর্যন্ত প্রধান পিচের সড়কটির বেহালদশা দীর্ঘ দিন ধরে বিরাজ করছে। এ রাস্তাটির খানা খন্দ মাঝে মধ্যে সংস্কার করা হলেও বর্তমানে চলাচলের সম্পুর্ন অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তবে ইতিমধ্যে শ্যামনগরের প্রধান দুটি সড়ক নওয়াবেকী ও কাশিমাড়ীর রাস্তা সংস্কার হওয়ায় পথচারী সহ সাধারন মানুষ খুবই ও আনন্দিত।

এদিকে মুন্সিগন্জ, বুড়িগোয়ালিনী, গাবুরা, ইশ্বরীপুর, শ্যামনগর সদর ৬/৭ টি ইউনিয়নের মানুষের চলাচলের সড়কটির বেহাল দশা থাকায় ওই এলাকার হাজার হাজার মানুষের এখন প্রধান দাবীতে পরিনত হয়েছে এ রাস্তাটির সংস্কার করা । পৃথিবীর সবচেয়ে সব দৃশ্যমান ও ব্যাতিক্রম বন ভুমি হলো সুন্দরবন। আর এ সুন্দরবনকে দেখতে সরাসরি সড়কে পথে দেশ বিদেশের বিভিন্ন এ সড়ক দিয়ে শ্যামনগর, মুন্সিগন্জ ও বুড়িগোয়ালিনীতে যেয়ে থাকে।

উপজেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় মুন্সিগন্জ কলবাড়ীতে ধীরে ধীরে দৃশ্যমান ইকো ট্যুরিজম পার্ক আকাশলীনা গড়ে ওঠেছে। যেটি ভ্রমন পিপাসুদের কাছে অত্যান্ত প্রিয় একটি স্থানে পরিনত হয়েছে। একাধিক পথচারীরা বলেন,গত ২ দিন আগে খানা খন্দ রাস্তার কারনে ২টি মালবাহী ট্রাক রাস্তায় আটকে গেলে প্রায় দিনব্যাপী ওই সড়কে যান বাহন চলাচল বন্ধ ছিল।

এদিকে রাস্তাটির সংস্কারের বিষয় নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ মোঃ মনজুর আলম এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, রাস্তাটি পরিপুর্ন সংস্কার করার লক্ষে সর্বোচ্ছ মহলে কাজ চলছে। বরাদ্ধ পেলেই কাজ শুরু হবে। তবে বর্ষা মৌসুমের মধ্যেই  কিছুই মোটা রাবিস বা গ্যাটস দিয়ে সংস্কার করা হবে।
সাতক্ষীরা-৪ আসনের এম পি এস এম জগলুল হায়দার বলেন, কাশিমাড়ী ও  নওয়াবেকী সড়কটি দীর্ঘ দিন খারাপ থাকলে এর আগের কোন জনপ্রতিনিধির নজরে আসেনি। আমি ক্ষমতা পাওয়ার পরপরই  ঢাকাই যেয়ে আগেই এ রাস্তা দুটি  সংস্কার করতে সক্ষম হয়েছি। এছাড়া বুড়িগোয়ালিনী, মুন্সিগন্জ, কাশিমাড়ী সহ একাধিক ইউনিয়নের প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে পিচের কাজ চলমান রয়েছে।

তবে মুন্সিগন্জ থেকে শ্যামনগর রাস্তাটির সংস্কার সহ নতুন ভাবে পরিপুর্ন সংস্কার করার লক্ষে ডিও লেটার দিয়েছি।আশাকরি আগামী অর্থ বছরে এ রাস্তার কাজ অবশ্যই হবে।তিনি আরো বলেন,শ্যামনগর সদরে ইতিমধ্যে পাচটি রাস্তার পিচের কাজের জন্য অনুমোদিত হয়েছে। টেন্ডার হলেই কাজ শুরু হবে। সময়ের ব্যবধানে পর্য্যায় ক্রমে শ্যামনগর জনপদের সকল রাস্তা পাকা করন হবে। তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে গুরুপ্তপুর্ন স্থান গুলোতে উন্নত মানের ডজন খানি ব্রীজের কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া দুর্গম এলাকার পল্লীতে ৫/ ৬টি সাইক্লোন সেল্টার নির্মানের কাজ চরমান রয়েছে।তিনি বলেন,বর্তমান সরকার সার্বিক বিষয় আন্তরিক এবং স্বরনীয় ভাবে দৃশ্যমান কাজ করে যাচ্ছে।