শ্যামনগরের সাবেক ইউএনও, চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র জেলা প্রশাসক জাহিদুল ইসলাম আর নেই


499 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরের সাবেক ইউএনও, চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র জেলা প্রশাসক জাহিদুল ইসলাম আর নেই
অক্টোবর ১৭, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর :

শ্যামনগরের সাবেক ইউএনও, চাপাইনবাবগঞ্জ’র জেলা প্রশাসক (ডি সি) মোঃ জাহিদুল ইসলামের মৃত্যুতে শ্যামনগরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ১৭ অক্টোবর বেলা দশটার দিকে তিনি রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়মিত সভা অংশ গ্রহন করেছিলেন। সভাস্থলে তিনি হঠাৎ বুকে ব্যাথা অনুভব করলে তাকে দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থা গুরুতর হলে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) তে নেয়া হয়। কিন্তু অল্পক্ষন পরেই তিনি চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে ইহলোকের মায়া ত্যাগ করেন।
মুত্যকালে তার বয়স হয়েছিল পঞ্চাশ বছর। তিনি কেবল মা, স্ত্রী, দুই কন্যা ও একমাত্র ছেলে ১০ বছর বয়সী ইয়াছিনসহ অসংখ্যা গুনগ্রাহী ও আত্বীয় স্বজন রেখে গেছেন।
উল্লেখ্য জাহিদুল ইসলাম ২০০৭ সালে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার নির্বাহী (ইউএনও) অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এসময় তিনি শ্যামনগর উপজেলার শিক্ষা স্বাস্থ্য যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ নানা ক্ষেত্রের কাজে দক্ষতার পরিচয় দেন। উপজেলা সদরের প্রানকেন্দ্রে অবৈধ দখলদারদের কব্জা থেকে সওজ’র পাঁচ কোটি টাকার সম্পত্তি উচ্ছেদে প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখেন।
এছাড়া এলাকার শিল্প, সাহিত্য, ক্রিড়া ও সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্রে জাগরন তৈরীতে ভূমিকা রাখেন।
জাহিদুল ইসলাম ২০১৬ সালের ২৭ জানুয়ারী জেলা প্রশাসক হিসেবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় যোগদান করেন।
তিনি শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাবের ভবন নির্মানে সর্বোত সহযোগীতা করেন। স্বল্প দিনের দায়িত্ব পালনকালে তিনি শ্যামনগর উপজেলাকে একটি আধুনিক জনপদ হিসেবে পরিচিত করার ক্ষেত্রে অসামান্য অবদান রাখেন।
জাহিদুল ইসলামের বাড়ি গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার শুকতাইল গ্রামে। ১৩ তম বিসিএস-এ উত্তীর্ন হয়ে তিনি প্রশাসন ক্যাডারে যোগদান করেন। এর আগে তিনি ভূমি মন্ত্রনালয়ের উপ-সচিব এর দায়িত্ব পালন করেন।
বেলা তিনটায় চাপাইনবাবগঞ্জ জেলা ষ্টেডিয়ামে তার জানাযা শেষে গোপালগঞ্জের নিজ বাড়িতে তাকে সমাহিত করার তথ্য নিশ্চিত করেছেন চাপাইনবাগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবু জাফর।
তার অকাল প্রয়ানের খবরে শ্যামনগর উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিক, শিক্ষক ও সুধী সমাজের ব্যক্তিবর্গের পাশাপাশি সর্বস্তরের মানুষ শোকাভীভূত হয়ে পড়ে। পেশার প্রতি আন্তরিক, সৎ ও দক্ষ জাহিদুল ইসলামের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকাতুর পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছে শ্যামনগরবাসী ও প্রেসক্লাবের সভাপতি আকবর কবীর, সম্পাকদ জাহিদ সুমন, সুন্দরবন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি গাজী সালাউদ্দীন বাপ্পী, সম্পাকদ এস কে সিরাজ সহ কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ।##