শ্যামনগরে ইউপি সদস্যের হিংস্র দাবানলে শেষ হলো বৃদ্ধ ভরত চন্দ্রের বসত ঘর


502 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে ইউপি সদস্যের হিংস্র দাবানলে শেষ হলো বৃদ্ধ ভরত চন্দ্রের বসত ঘর
মার্চ ১৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর ::
শ্যামনগর উপজেলার রমজাননগর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড সোনাখালীর ইউপি সদস্য পতিত পবন ও ৮নং ওয়ার্ড টেংরাখালীর ইউপি সদস্য মো. আব্দুল হামিদ লাল্টুর দেয়া আগুনে পুড়ে ছাঁই হলো বৃদ্ধ ভরত চন্দ্র (৭৫) এর বসত ঘর।

জানা যায়, সোনাখালী গ্রামের মৃত কৃত মন্ডলের পুত্র ভরত চন্দ্র মন্ডলের সাথে মৎস্য ঘেরে পানি সরানোর আউট ড্রেন নিয়ে গ্রামের ইউপি সদস্য পতিত পবনের সাথে দীর্ঘ বছর ধরে নানা সমস্যা হয়ে আসছিল।

তারই জের ধরে বিকাল ৪টায় ইউপি সদস্য পতিত পবন ও ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ লাল্টুর নেতৃত্বে চারু মন্ডলের পুত্র নির্মল মন্ডল, অনন্ত মন্ডলের পুত্র অমরেন্দ্র নাথ মন্ডল ও ধনঞ্জয় মন্ডল, উত্তম কুমার মন্ডল, আনন্দ মোহনের পুত্র নরেশ মন্ডল, তুষার

মন্ডলের পুত্র পক্কজ মন্ডল, অজিত মন্ডলের পুত্র নিহার চন্দ্র মন্ডল , নটোবর মন্ডলের পুত্র উৎপল মন্ডল, সৌলন্দ্র মন্ডলের পুত্র শুকদেব মন্ডলসহ ২০/২৫ জন সসস্ত্র বাহিনী রড, বাঁশের লাঠি ও ইট নিয়ে ভরত চন্দ্র মন্ডলের বাড়িতে হামলা করে।

এ সময় তাদের হাতে মৃত কৃতি মন্ডলের পুত্র ভরত চন্দ্র মন্ডল, সুবল চন্দ্র মন্ডলের পুত্র উদয় মন্ডল, স্বপন মন্ডল ও তার স্ত্রী লতিকা মন্ডল, সুপেন্দ্র নাথ মন্ডল ও তার স্ত্রী কনিকা মন্ডল, তপন কুমার মন্ডল ও তার স্ত্রী অঞ্জলী রানী মন্ডল আহত হয়। এ সময় সন্ত্রাসী বাহিনী তাতেও ক্ষ্যান্ত না হয়ে ভরত চন্দ্রের বসত ঘরটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

ইউপি সদস্য পতিত পবন আহতদের হুমকি প্রদর্শন করে, কোন মামলায় গেলে প্রাণে শেষ করে ফেলব। বিষয়টি শ্যামনগর থানাকে অবগত করলে এসআই মিজান ও সংঙ্গীয় ফোর্স ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

এ বিষয়ে পতিত পবন বলেন, জায়গাটি বিতর্কিত। রাতের আঁধারে ঘেরের আউট ড্রেনের উপর ঘর নির্মাণ করে এবং নেজেরাই আগুন ধরিয়ে আমাকে দোষারোপ করছে।

ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ লাল্টু বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা। এ রিপোর্ট লেখা পযর্ন্ত শ্যামনগর থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।

##