শ্যামনগরে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ করায় প্রধান শিক্ষক বরখস্ত


545 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ করায় প্রধান শিক্ষক বরখস্ত
জুলাই ৩১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর :
সুন্দরবন উপকুলীয় খোলপেটুয়া নদীর তীরে অবস্থিত শ্যামনগর পদ্ধপুকুর ইউনিয়নের ৬৭ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪০ শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির টাকা আত্বসাত করায় ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার সরকারকে বিভাগীয় ভাবে বরখস্ত করা হয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম বলেন, ৬৭ নং  চন্ডিপুর  সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৮৫ জন শিক্ষার্থীর অভিভাবক কে উপবৃত্তির টাকা দেয়ার কথা ছিল। সেই মোতাবেক গত ১৯/৭/ ১৬ তারিখে উপবৃত্তির টাকা দেয়া হয়। কিন্ত প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার সরকার কৌশলে অভিভাবকদের সংবাদ না দিয়ে নামমাত্র   দ্বদায়িত্বশীল ব্যাংক কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় উপবৃত্তির টাকা প্রদান করেন। তিনি আরো বলেন, টাকা দেয়ার এক পর্য্যায় প্রায় ৪০ জনের টাকা অবশিষ্ট থাকে।  পরের দিন বাকী টাকা দেয়া হবে বলে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক শ্যামনগর শাখার লোন অফিসার মোঃ হাবিবুল্লাহ কে উপবৃত্তির এ টাকা প্রধান শিক্ষকের কাছে রাখার কথা বলেন। দুরবর্তী এলাকা হওয়ায় অবশিষ্ট টাকা প্রধান শিক্ষকের কাছে রাখা হলে,সে টাকা বিতরন না করে সম্মুদয় টাকা আত্বসাত করে।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে এলাকায় জানা জানি হলে শিক্ষার্থী অভিভাবক স্কুল ঘেরাও করে প্রধান শিক্ষককে অবরুদ্ধ করে রাখে। এক পর্য্যায় উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে প্রধান শিক্ষক কোন রকমে মুক্ত হয়।  তিনি আরো বলেন, বিষয়টি সরেজমিন তদন্ত পুর্বক প্রতিবেদনের দ্বায়িত্ব আমাকে দেয়া হলে এ ঘটনার সত্যতা পাই। উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ সংক্রান্ত সকল তথ্য লিখিত ভাবে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর দাখিল করি।

শ্যামনগর কৃষি ব্যাংক শাখার লোন অফিসার হাবিবুল্লাহ বলেন, অভিভাবকদের অনুস্থিতির কারনে ১৩ হাজার ৮ শত টাকা ব্যাংকে ফিরিয়ে আনি। এদিকে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ ইসমাইল হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, উপবৃত্তির টাকা আত্বসাত করার অভিযোগ প্রাথমিক ভাবে প্রমানিত্ব হওয়ায় উপজেলার ৬৭ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার সরকারের বিরুদ্ধে লিখিত ভাবে বিভাগীয় উপ-পরিচালক প্রাথমিক শিক্ষা, খুলনা বরাবর জানানো হয়েছে।এর পরিপ্রেক্ষিতে,এ ,কে,এম গোলাম মোস্তফা, বিভাগীয় উপ- পরিচালক প্রাথমিক শিক্ষা খুলনা বিভাগ,খুলনা প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার সরকারকে শিক্ষা বিধিমালা ১৯৮৫ এর ১১(১)নং বিধিমোতাবেক চাকুরী হতে সাময়িক ভাবে বরখস্ত করে লিখিত পত্রের মাধ্যমে জানান।