শ্যামনগরে এক ব্যক্তিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ


82 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে এক ব্যক্তিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ
এপ্রিল ১, ২০২০ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

সামিউল মনির ::

জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আবুল বাসার নামের এক ব্যক্তিকে ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে শ্যামনগর উপজেলার ছোট ভেটখালী গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। দুবৃর্ত্তরা ঘরে আগুন লাগানোর আগে বসতঘর সংলগ্ন তার দশ বিঘা আয়তনের চিংড়ি ঘেরের বেড়ীবাঁধ কেটে দেয়। এসময় তার চিৎকারে পাশের ঘরে ঘুমন্ত দুই ছেলেসহ প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে।
ঘটনার শিকার আবুল বাসার অভিযোগ করেন বসতঘর সংলগ্ন তার চিংড়ি ঘেরের জায়গা নিয়ে স্থানীয় আব্দুল জলিলের সাথে তার বিরোধ চলছে। সম্প্রতি প্রতিপক্ষের লোকজন বসত ঘরসহ তার চিংড়ি ঘের দখলের হুমকি দেয়ায় গত ২৪ মার্চ শ্যামনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ প্রতিপক্ষকে মহামান্য উচ্চ আদালতের ‘স্থিতিবস্থা’ বজায় রাখার নির্দেশ দেয়ার পর ৩০ মার্চ সোমবার দিবাগত রাতে বাইরে থেকে শিঁকল লাগিয়ে তার শোবার ঘরের আগুন লাগিয়ে দেয়।
আবুল বাসার আরও অভিযোগ করেন, আব্দুল জলিল সাতক্ষীরা জেলা জর্জ কোর্টে আইনজীবির সহকারী হিসেবে কাজ করেন। তার চিংড়ি ঘেরের মধ্যে থাকা সরকারি খাস জমি বন্দোবস্ত নিতে ব্যর্থ হয়ে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছিল। সর্বশেষ তার লোকজনের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ করায় সোমবার নিজস্ব লোকজন নিয়ে আব্দুল জলিল তাকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে। এঘটনায় তিনি আব্দুল জলিল, ফারুক, সাদেক, নেছারসহ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে শ্যামনগর থানায় অভিযোগ করবেন।
ঘটনার বিষয়ে আব্দুল জলিল জানান, বাসারের ঘরে কে আগুন লাগিয়েছে তা আমার জানার কথা না। তিনি আরও বলেন, আগুন লাগানোর অভিযোগে বাসার সাদেক নামের একজনকে মারধর করায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাজমুল হুদা বলেন, উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশ থাকা একটি জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। অভিযোগ খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

#