শ্যামনগরে কাশীমাড়ীর নয়ন খালটি বিশ বছর পর উম্মুক্ত


574 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে কাশীমাড়ীর নয়ন খালটি বিশ বছর পর উম্মুক্ত
আগস্ট ১১, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ,শ্যামনগর :
দীর্ঘ বিশ বছর ধরে চার কিঃমিঃ লম্বা ও দেড়শ” ফুট চওড়া নয়ন খালটি অবশেষে স্থানীয় চেয়ারম্যান এস এম আব্দুর রউফের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধা সংগঠন ও শতশত গ্রামবাসীদের সহযোগিতায় ভুমি দস্যুদের কবল থেকে শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ীর নয়ন খালটি উম্মুক্ত হলো।

উপজেলার কাশিমাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস এম আব্দুর রউফ বলেন, গত ২দিন ধরে টানা বর্ষনের কারনে কাশিমাড়ী ইউনিয়নের সকল এলাকা ডুবে যায়। জলাবদ্ধতার কারনে খাল, বিল ,পুকুর,চিংড়ী ঘের সবই একাকার হয়ে যায়। এসময় স্থানীয়, কৃষক সংগঠন, মুক্তিযোদ্ধা সহ সকল শ্রেনীর মানুষ ফুসে উঠে। তারা নিজেদের বাড়ীতে থাকা  দা,কোদাল,লাঠি সোটা সহ যার যার যা,আছে সবই নিয়ে ঝাপিয়ে পড়ে ভুমি দস্যুদের দখলে থাকা নয়ন খালটি অবমুক্ত করতে। হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে অবশেষে নয়ন খালটি উম্মুক্ত হওয়ায় এ এলাকার কৃষকদের মধ্যে আনন্দের ঝড় বইছে। তিনি আরো বলেন, সাতক্ষীরা-৪ আসনের এম পি এস এম জজগলুল হায়দার ,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভুমি)এর পরামর্শে খালটি উম্মুক্ত করতে পেরেছি।জলাবদ্ধতার কবল থেকে সাধারন মানুষ রক্ষা পাবে।পাশাপাশি এই  এলাকায় মিষ্টি পানির আধার সৃষ্টি হবে।হবে এ এলাকায় নানা প্রকার ফসলাদি। তিনি বলেন,এ এলাকার এক শ্রেনীর স্বার্থনেষী মহল কিছু ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করে খালটি অবৈধ ভাবে দখল করে রেখেছিল। অবশেষ খালটি গত বুধবার ১০/৮/১৬ তারিখে খালটি উম্মুক্ত হলো।

এবিষয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ  মোঃ মনজুর আলম বলেন,একটানা বৃষ্টির কারনে শ্যামনগরের সকল ইউনিয়নে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে, তবে এভাবে খালগুলো উম্মুক্ত করা হলে এলাকায় কোন জলাবদ্ধতা থাকবেনা । ইতিমধ্যে এসিল্যান্ডের মাধ্যমে অনেকগুলো খাল উম্মুক্ত হয়েছে।