শ্যামনগরে বেড়ীবাধ ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করলেন এম পি জগলুল হায়দার


823 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে বেড়ীবাধ ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করলেন এম পি জগলুল হায়দার
এপ্রিল ২৯, ২০১৭ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

এস কে সিরাজ ::
শ্যামনগর কাশিমাড়ীতে খোলপেটুয়া নদীর বেড়ীবাধে ভয়াবহ ফাটল ধরেছে, যে কোন সময়  এ এলাকা ভেঙ্গে যেতে পারে।শনিবার সকাল থেকে কর্মসৃজন কর্মসৃচীর শ্রমিকদের পাশাপাশি গ্রামবাসীরা স্থানীয় চেয়ারম্যান এস এম আব্দুর রউফ এর নেতৃত্বে  স্বেচ্ছা শ্রমের মাধ্যমে বেড়ীবাধ সংস্কার করতে থাকে। হঠাৎ সাতক্ষীরা -৪ আসনের এম পি এস এম জগলুল হায়দার উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের উৎসাহ দিতে এ সময় তিনি শ্রমিকদের সাথে কিছুক্ষন কাজ করেন।
এদিকে  উপজেলার কাশিমাড়ীর ঝাপালী, ঘোলা সহ আরো কয়েকটি স্থানে পাউবোর বেড়ীবাধে ভয়াবহ ফাটল দেখা দিয়েছে।যে কোন সময় বেড়ীবাধ ভেঙ্গে শ্যামনগর উপজেলা কাশিমাড়ী, আটুলিয়া সহ কালিগন্জের কয়েকটি এলাকা এক নিমিশে প্লাবিত হতে পারে।
উপজেলার ২নং কাশিমাড়ী ইউনিয়নের স্বচ্ছ চেয়ারম্যান এস এম আব্দুর রউফ বলেন,বেড়ীবাধে ভয়াবহ ফাটল দেখা দিয়েছে।বর্তমানে নদীতে প্রচন্ড স্রোত আর প্রবল ঢেউ।যার কারনে কাল বৈশাখীর ঝড়ো হাওয়ায় ঢেউয়ের তীব্রতায় পাুউবোর বাধের ভাঙ্গন দিন দিন বেড়েই চলেছে। জোয়ারের তোড়ে নতুন নতুন এলাকায় ও বেড়ীবাধে ভাঙ্গন ধরেছে। ইতিমধ্যে চেয়ারম্যানেরর নেতৃত্বে কিছু কিছু যায়গায় বাধের ভাঙ্গন মেরামত করা হলে ও রাত পোহালেই নতুন নতুন ভাঙ্গনের সৃষ্টি হচ্ছে।চেয়ারম্যান এস এম আব্দুর রউফ বলেন,বেড়ীবাধে যদি স্থায়ী ভাবে মেরামত না করা যায়, তাহলে যে কোন সময় বেড়ীবাধ ভেঙ্গে এলাকা তলিয়ে যাবে।তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উপজেলা মাসিক সভায় অভিযোগ করেছি।এছাড়া পাউবোর উর্দ্ধতন কর্তৃৃপক্ষের বার বার হস্তক্ষেপ কামনা করেছি।তবে এখনও পর্যন্ত কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ গ্রহন না করায় আমার কাশিমাড়ী ইউনিয়ন বাসী খুবই উদ্বিগ্ন।তিনি আবার সাংবাদিক সমাজের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।