শ্যামনগরে যাত্রার নামে নগ্ননৃত্য : ভয়েস অব সাতক্ষীরায় প্রকাশিত খবরে তোলপাড়


508 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে যাত্রার নামে নগ্ননৃত্য : ভয়েস অব সাতক্ষীরায় প্রকাশিত খবরে তোলপাড়
ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

মনজুর কাদীর, বিশেষ প্রতিনিধি :
শ্যামনগর থানা থেকে মাত্র ৩ কিলোমিটার দূরে সোনারমোড় নামক স্থানে যাত্রার নামে যুবতিদের নগ্ননৃত্য নিয়ে ভয়েস অব সাতক্ষীরায় প্রকাশিত সংবাদ প্রকাশের পর শুরু হয়েছে তোলপাড়। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ভয়েস অব সাতক্ষীরায় প্রকাশিত সংবাদ পড়ে নগ্ননৃত্য বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসনকে। আজ থেকে সেখানে কোন ধরনের নগ্ননৃত্য চাললে যাত্রার অনুমতি বাতিল করে দেওয়ার পাশাপাশি আয়োজকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানিয়েছেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

শনিবার সাতক্ষীরার পাঠকপ্রিয় অনলাইন সংবাদপত্র ভয়েস অব সাতক্ষীরায় “শ্যামনগরে যাত্রার নামে চলছে নগ্ননৃত্য : বসছে জমজমাট মদ-গাজা-জুয়ার আসর” প্রধান শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশের পর রোববার সকাল থেকেই প্রশাসনসহ সর্ব মহলে শুরু হয় তোলপাড়।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মহিউদ্দিন বলেন, রোববার সকালে ভয়েস অব সাতক্ষীরায় প্রকাশিত সংবাদ পড়েই নগ্ননৃত্যের বিষয়টি জানতে পারি। সকালেই শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছি , কোন অবস্থাতেই আজ (রবিবার) থেকে এসব চলবে না।

তিনি বলেন, আমি কোন ধরনের যাত্রা বা গানের অনুমতি দিতে চাইনা এসব কারণে। কিন্তু শ্যামনগরের এমপি সাহেবের কারণে যাত্রার অনুমতি দিতে হয়েছে। তবে এ ধরনের নগ্ননৃত্য চালবে বুঝতে পারলে অনুমতি দিতাম না।

এ ব্যাপারে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু সায়েদ মো: মঞ্জুরুল আলম ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানান, আজ (রবিবার ) ভোরে ঘুম থেকে উঠেই ডিসি স্যার নগ্ননৃত্যের বিষয়টি নিয়ে আমার সাথে কথা বলেছেন। উনার নির্দেশ অনুযায়ী আজ থেকে নগ্ননৃত্য বন্ধ।

তিনি বলেন, যাত্রার নামে কোন ধরনের নৃত্য সেখানে চলবে না। যেসব শর্ত দিয়ে যাত্রার অনুমতি নেওয়া হয়েছে সেসব শর্ত ভঙ্গ করলেই যাত্রার অনুমতি বাতিল করে দেওয়া হবে।

তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, স্থানীয় কয়েকজন শীর্ষ জনপ্রতিনিধি ও ক্ষমতাসীন দলের নেতার উদ্যোগে শ্যামনগরের সোনারমোড়ে গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে চলছে যাত্রার নামে নগ্ননৃত্য। স্থানীয় প্রশাসন ১৫ দিনের জন্য সেখানে শর্তসাপেক্ষে যাত্রার অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু আয়োজকরা শুরু থেকেই সেসব শর্ত ভঙ্গ করে সেখানে যুবতিদের নগ্ননৃত্যের আসর বসিয়েছে। সাথে চলছে মদ-গাজা-জোয়ার জমজমাট আসর। ফলে এলাকায় চুরি,ছিনতাইসহ অসামাজিক কর্মকান্ড সাঙ্গাতিক ভাবে বৃদ্ধি হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, শ্যামনগর থানা পুলিশের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় প্রভাবশালী মহলটি নগ্ননৃত্যের আয়োজন করছে। আয়োজকরা পুলিশ, সাংবাদিকসহ সব মহলকে টাকার বিনিময়ে নিয়ন্ত্রন করে এসব অসামাজিক কর্মকান্ড চালাচ্ছে। ফলে যুবসমাজ ধবংস হচ্ছে। বিশেষ করে স্কুল , কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা মানষিক ভাবে নষ্ট হচ্ছে। শ্যামনগরের সুশিল সমাজ অবিলম্বে এসব নগ্ননৃত্য বন্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার দাবী জানিয়েছে।