শ্যামনগরে রুপালি হত্যা মামলার সঠিক তদন্তের দাবীতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন


377 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে রুপালি হত্যা মামলার সঠিক তদন্তের দাবীতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন
সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::
সাতক্ষীরার শ্যামনর উপজেলার মুন্সিগঞ্জ গ্রামের রুপালী হত্যা মামলার সঠিক তদন্তে দাবীতে সংবাদ সম্মেলনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করনে, একই গ্রামের মৃত ফজর আলী মোড়ল এর পুত্র মহিদুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ৮/৮/১৭ইং তারিখে আমার প্রতিবেশি মুন্সিগঞ্জ গ্রামের অরুন কুমার মন্ডলের মেয়ে রুপালি একই গ্রামের বিকাশ মন্ডলের ছেলে রাজু মন্ডলের ঘরে আত্মহত্যা করে। এই ঘটনার পরদিন ৯/৮/১৭ইং তারিখে রুপালির দাদা উত্তম কুমার মন্ডল বাদি হয়ে শ্যামনগর থানায় একটি অপমৃতু মামলা দায়ের করে। (মামলা নং-১৪ তারিখ ৯-৮-১৭)। উক্ত মামলায় আমাকে সহ মোট ১০জনকে আসামী করা হয়েছে। অথচ উক্ত ঘটনাই আমার কোন সংশ্লিঠতা নেই।

প্রকৃত ঘটনা হল, রুপালির সাথে রাজুর দীর্ঘ দিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ঘটনার দিন রুপালি রাজুর সাথে একটি ঘরে অসামাজিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় রুপালির মামা জগদিস মন্ডল ও প্রতিবেশি আব্দুল রব ঘটনা স্থলে এসে উক্ত ঘর থেকে রাজুকে বের করে দেয়। এরপর রাজু এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার জের রুপালি লোকলজ্জার ভয়ে ঐ ঘরেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। কিন্তু উক্ত মামলায় বাদির অজান্তে আমাকে সহ আমার ছোটভাই আইয়ুব, ভাইপো আব্দুল্লাহ কে ঐ মামলার আসামী করা হয়েছে।

বুধবার সকালে শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এই মামলার তদন্তে এলে এলাকার কয়েক হাজার মানুষের সামনে বাদি রুপলির মা, মামা সহ এলাকার সবাই আমাদের নির্দোশ দাবি করেন। এ সময় ওসি সাহেব উক্ত মামলা থেকে আমাদের অব্যহতি দেওয়ার আশ্বাস দেন।

রুপালি আত্মহত্যার প্রকৃত ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে একটি এলাকার একটি সার্থনেশি মহল এই ঘটনায় ফাইদা লুটতে চাইছে। তারাই বাদির অজান্তে পুলিশকে ভুল বুঝিয়ে আমাকে সহ এলাকার সাধারন মানুষদের এই মামলার আসামী করেছে। আপনাদের মাধ্যামে প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, এই ঘটনার প্রকৃত তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানাচ্ছি।
##