শ্যামনগরে র‌্যাবের উপর হামলার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান আল মামুনের নামে মামলা


321 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
শ্যামনগরে র‌্যাবের উপর হামলার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান আল মামুনের নামে মামলা
জুলাই ১৯, ২০২১ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

আসামীর সংখ্যা ৭ , চেয়ারম্যান আল মামুন কারাগারে

আসাদুজ্জামান :
সাতক্ষীরার শ্যামনগরে র‌্যাব সদস্যদের উপর চোরাচালানিদের হামলা, গাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার রাতে খুলনা র‌্যাব-৬ এর সাতক্ষীরা ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক এলাহি মিয়া বাদি হয়ে শ্যামনগর থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। এ মামলায় রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আল মামুনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার অপর আসামীরা হলেন, শ্যামনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের সামছুল আলী গাজীর ছেলে ইউনুছ আলী, একই উপজেলারে রমজাননগর গ্রামের শেখ মাকসুদ হোসেনের ছেলে মজিবুল ইসলাম, একই গ্রামের নেসার মোল্লার ছেলে হযরত আলী, আব্দুল হামিদের ছেলে ফজের আলী, শেখ আব্দুল গফফারের ছেলে শেখ আলমগীর হোসেন ও শিবচন্দ্রপুর গ্রামের বিল্টু বর্মনের ছেলে প্রদীপ বর্মণসহ অজ্ঞাতনামা ৩০/৪০ জন।

মামলার বিবরনে জানা যায়, গত ১৬ জুলাই রাত পৌনে ১০টার দিকে বাদি এলাহী মিয়াসহ র‌্যাব সদস্যরা রমজাননগর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের তিন রাস্তার মোড়ে মাদক কেনা বেচা হচ্ছে মর্মে গোপন খবরের ভিত্তিতে তারা ঘটনাস্থলে যান। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামীরা পালিয়ে যায়। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পর র‌্যাব সদস্যরা ক্যাম্পের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার পরপরই আসামীরা র‌্যাব সদস্য ও তাদের সোর্সদের মোটর সাইকেলের গতিরোধ করে চাবি কেড়ে নেয়। র‌্যাব পরিচয় জানতে পেরে আসামী আল মামুনের নেতৃত্বে আসামীরা পাঁচ র‌্যাব সদস্যকে লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে ও ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় র‌্যাব সদস্যদের কাছে থাকা নগদ টাকা ও কয়েকটি মোবাইল সেট কেড়ে নেওয়া হয়। ভাঙচুর করা হয় তাদের ব্যবহৃত দু’টি মোটর সাইকেল ও একটি প্রাইভেট কার। হামলায় র‌্যাব সদস্যদের ছয় লাখ টাকা ক্ষতি হয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আহত র‌্যাব সদস্যদের শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আল মামুনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ব্যাপারে রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আল মামুন সোমবার দুপুরে আদালত চত্বরে র‌্যাব সদস্যদের উপর হামলার কথা অস্বীকার করে বলেন, গত ১৬ জুলাই রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি ও তার চাচাতো ভাই ইউপি সদস্য জাহাঙ্গির শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অবস্থান করছিলেন। চোরাকারবারিরা র‌্যাব সদস্যদের উপর হামলা করেছে এমন খবরের ভিত্তিতে তাকে মোবাইল ফোনে র‌্যাব কর্মকর্তা পরিচয়ে রমজাননগরে আসতে বলা হয়। পরে তাকে সাতক্ষীরা র‌্যাব ক্যাম্পে ডেকে নিয়ে রোববার তার নামে মামলা দেওয়া হয়।

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হুদা জানান, হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় র‌্যাব এর উপ-পরিদর্শক এলাহী মিয়া বাদি হয়ে ৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩০/৪০ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। তিনি আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আল মামুনকে সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।