সংসদ চাইলে মৃত্যুদণ্ড ফিরিয়ে আনা হবে: এরদোগান


312 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সংসদ চাইলে মৃত্যুদণ্ড ফিরিয়ে আনা হবে: এরদোগান
আগস্ট ৮, ২০১৬ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক :
তুরস্কের সংসদ চাইলে তিনি দেশটিতে আবারও মৃত্যুদণ্ডের বিধান ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোগান। ইস্তানবুলে লাখ লাখ মানুষের এক সমাবেশে তিনি একথা বলেন। খবর বিবিসির।

গত ১৫ জুলাই দেশটিতে যে ব্যর্থ-অভ্যুত্থান-চেষ্টা হয় তারই প্রতিবাদে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এরদোগান যখন বক্তৃতা করছিলেন তখন সমবেত মানুষ জাতীয় পতাকা নেড়ে তাকে সম্ভাষণ জানায়।

এরদোগানের সমর্থকরা ছাড়াও ধর্মীয় নেতাদের অনেকেই এবং দেশটির অন্তত তিনটি বিরোধী দলের সমর্থকরাও এ সমাবেশে যোগ দেন।

সমাবেশে বক্তৃতা দিতে গিয়ে এরদোগান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ইসলামিক বোদ্ধা ফেতুল্লাহ গুলেনসহ তার সকল সমর্থকদেরকে তিনি তুরস্ক থেকে একেবারে নিশ্চিহ্ন করে দেবেন।

গত মাসের ব্যর্থ অভ্যুত্থান চেষ্টার জন্য এই গুলেনকেই দায়ী বলে মনে করে তুর্কি সরকার।

তিনি বলেন, ইউরোপে বা ইউরোপীয় কাউন্সিলে মৃত্যুদণ্ড নেই। কিন্তু আমেরিকায় আছে। জাপান, চীনসহ পৃথিবীর অধিকাংশ দেশে মৃত্যুদণ্ড আছে। সুতরাং তুরস্কের মানুষও এটি পেতে পারে।

“এছাড়া আগেও ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত এটি আমাদের ছিল। আর সার্বভৌমত্বের মালিক জনগণ। ফলে, জনগণ যদি কোনো সিদ্ধান্ত নেয় তাহলে রাজনৈতিক দল সেই সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়ন করবে”।

প্রসঙ্গত, তুরস্কের অভ্যুত্থান চেষ্টার পর গুলেনের হাজার হাজার সমর্থক চাকরি হারিয়েছেন এবং কারাবরণ করেছেন। ওই ব্যর্থ অভ্যুত্থানে প্রায় ২৭০ জন নিহত হয়।