সংস্কারের অনুমতি নিয়ে ঝাউডাঙা বাজারে অবৈধভাবে চলছে ভবন বাড়ানোর কাজ


426 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সংস্কারের অনুমতি নিয়ে ঝাউডাঙা বাজারে অবৈধভাবে চলছে ভবন  বাড়ানোর কাজ
মার্চ ৩, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

ইব্রাহিম খলিল ::
জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সংস্কারের অনুমতি নিয়ে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঝাউডাঙা বাজারের চাঁদনী স্বত্বের জমিতে আবারো শুরু হয়েছে অবৈধভাবে ভবন বাড়ানোর কাজ। সদর সহকারি ভূমি কমিশনার ও ঝাউডাঙা ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশীলদারের কার্যকরী ভূমিকা না থাকায় এ অবৈধ নির্মাণ কাজ বৈধতা পাচ্ছে।
ঝাউডাঙা বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ি জানান, তামান্না ফিস নামের ব্যবসা প্রতিষ্টানের স্বত্বাধিকারী সদর উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের সেলিম হোসেন চাঁদনী স্বত্বের জমিতে গত অক্টোবরের মাঝামাঝি নাগাদ অবৈধভাবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাড়ানোর কাজ শুরু করলে ভ্রাম্যমান আদালতে তার এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড হয়। একই সাথে ওই ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে লাল পতাকা তুলে দেওয়া হয়। জামিনে মুক্তি পেয়ে সেলিম হোসেন গত বছরের ২ ডিসেম্বর বিকেল থেকে কমপক্ষে ৪০ জন নির্মাণ শ্রমিক একত্রে তামান্না ফিস এর বহুতল ভবনের বর্ধিত অংশের কাজ নির্মাণের কাজ শুরু করে। লোকের চোখ এড়াতে ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের চারিদিকে চট ও বস্তা দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়। জেলা প্রশাসকের নজরে আসায় ওই কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। নিরুপায় হয়ে সেলিম হোসেন ৪ ডিসেম্বর সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সংস্কারের জন্য অনুমতি নেন। তবে অনুমতি নেওয়ার আগে অবৈধভাবে কাজ শুরুর অভিযোগে ঝাউডাঙা তহশীলদার শহীদুল ইসলাম ৪ ডিসেম্বর তামান্না ফিসের মালিক সেলিম হোসেন ও তার ভাই মাসুদের বিরুদ্ধে পৃথক দু’টি লিখিত অভিযোগ সহকারি ভূমি কমিশনারে কাছে দিলেও অজ্ঞাত কারণে মামলা হয়নি। ফলে অবৈধ নির্মাণকারিরা বিনা বাধায় তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পশ্চিম দিকে ছয়টি পিলার নির্মাণ করে।
প্রত্যক্ষদর্শী ঝাউডাঙা বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ি জানান,গত বৃহষ্পতিবার বিকেল থেকে তামান্না ফিস কর্তৃপক্ষ সংস্কারের নামে দোকানের মধ্যে সিড়ি নির্মান কাজ শুরু করে। বিষয়টি সহকারি ভূমি কমিশনার দেবাশীষ চৌধুরীকে অবহিত করা হলে তিনি তহশীলদার শহীদুল ইসলামকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। তহশীলদার ভবন বাড়ানোর কাজ নয়, সংস্কার করা হচ্ছে বলে বিষয়টি কমিশনারকে অবহিত করেন। বৃহষ্পতিবার রাতভর কাজ করার পর শুক্রবার সকাল থেকে তামান্না ফিস এর পূর্ব পাশে নতুন করে চারটি পিলার ও দেয়াল নির্মাণের কাজ শুরু করা হলে বিষয়টি আবারো সহকারি ভূমি কমিশনার দেবাশীষ চৌধুরীকে অবহিত করা হয়। তিনি ছুটি নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছেন বলে তহশীলদারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়ার কথা বললেও  কোন ব্যবস্থা গৃহীত হয়নি।
তামান্না ফিস এর মালিক সেলিম হোসেন জানান, সিড়ি ও পিলার নির্মাণ  ভবন সংস্কারের মধ্যেই পড়ে। তাই তারা কাজ করছেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঝাউডাঙা ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশীলদার শহীদুল ইসলাম অবৈধ নির্মাণ কাজ চলার বিষয়টি অস্বীকার না করেই বলেন, ইতিমধ্যেই তামান্না ফিস কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে। তবে কোন তারিখে মামলা দেওয়া হয়েছে তা তিনি জানাতে পারেননি।
সাতক্ষীরা সদর সহকারি ভূমি কমিশনার দেবাশীষ চৌধুরী জানান, তিনি ছুটি নিয়ে ঢাকায় গেছেন। ভবন সংস্কারের নামে সিড়ি ও পিলার নির্মানে তহশীলদারের বাধা না শুনলে আইনের মাধ্যমে অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করা হবে।