সাংবাদিক জুলফিকার আলীর সুস্থ্যতা কামনায় ক্রাইম রিপোর্টাস ক্লাব


355 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাংবাদিক জুলফিকার আলীর সুস্থ্যতা কামনায় ক্রাইম রিপোর্টাস ক্লাব
জানুয়ারি ৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :

অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় দৈনিক আজকের সাতক্ষীরা পত্রিকার বাঁশদহ প্রতিনিধি জুলফিকার আলীকে যারা পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীসহ আহত সাংবাদিকের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন সাতক্ষীরা জেলা ক্রাইম রিপোর্টাস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ।

আহত সাংবাদি জুলফিকার বর্তমানে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অসুস্থ এই সাংবাদিকের দ্রুত সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, সাতক্ষীরা জেলা ক্রাইম রিপোর্টাস ক্লাবের সভাপতি মোঃ আসাদুজ্জামান, সহ-সভাপতি আক্তারুজ্জামান

বাচ্চু, এম আর মধু, এড.খারুল বদিউজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক এস এম মহিদার রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক এ শাহীন গোলদার, স ম মশিউর রহমান ফিরোজ, হাফিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম সোহরাব হোসেন, অর্থ সম্পাদক আব্দুল

আলিম, দপ্তর সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক খন্দকার আনিছুর রহমান, কার্যনির্বাহী সদস্য সেলিম রেজা মুকুল, এম.ঈদুজ্জামান ঈদ্রিস, আবিদুল হক মুন্না, প্রফেসর রজব আলী, এম আফজাল হোসেন, রবিউল ইসলাম রবিসহ সংগঠনের সকল কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ।

উল্লেখ্য ঃ বাঁশদহ ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনের ভাই মেম্বর শহিদুল ইসলাম গত ১ জানুয়ারী রোববার রাতে গোপনে কম্বল বিতরণ করছিলেন।

বিষয়টি মোবাইলে জানতে চান সাংবাদিক জুলফিকার। এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ তার ভাইয়ের কাছ থেকে ফোনটি কেড়ে নিয়ে সাংবাদিক জুলফিকারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং সে কোথায় আছে তা জানতে চান।

এর পর ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ, তার ভাই মেম্বর শহীদুল, উজির আলির ছেলে মিঠু, শফির ছেলে শহিদ, আরিজুলের ছেলে তারিকুজ্জামানসহ ৮/১০ জন সন্ত্রাসী বাহিনী লোহার রড, লাটিসোটা নিয়ে কয়েকটি মটরসাইকেল যোগে সাংবাদিক জুলফিকারকে খুঁজতে থাকেন।

একপর্যায়ে জুলফিকারকে তার বাড়ির সামনে পেয়ে তারা মারপিট শুরু করেন। এসময় তার হাতের নখ তুলে নেয় তারা।

সাংবাদিক জুলফিকারের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী পালিয়ে যান। গুরুতর আহত সাংবাদিক জুলফিকার আলী বর্তমানে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় সাংবাদিক জুলফিকারের বাবা রাহাতুল্লাহ সরদার বাদী হয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

##