সাংবাদিক নদী হত্যা : আতঙ্কে দিন কাটছে পরিবারের


303 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাংবাদিক নদী হত্যা : আতঙ্কে দিন কাটছে পরিবারের
সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পাবনা প্রতিনিধি ::
পাবনার সাংবাদিক সুবর্ণা আক্তার নদী হত্যার পর এখন চরম আতঙ্কে দিন কাটছে তার পরিবারের সদস্যদের।

গত তিন দিন এই পরিবারের কেউ ঘরের বাইরে বের হননি। তার একমাত্র মেয়ে জান্নাতুর রশীদ জান্নাত আতঙ্কে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এমনকি তাদের বাজার করা পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। তবে এই কঠিন সময়ে পাবনার সাংবাদিক নেতারা এবং প্রশাসনের লোকজন তাদের খোঁজখবর রাখছেন।

নদীর মা মর্জিনা খাতুন শনিবার সন্ধ্যায় এসব কথা জানিয়েছেন।

এদিকে রিমান্ডের দ্বিতীয় দিনেও মুখ খোলেননি নদীর সাবেক শ্বশুর শিল্পপতি আবুল হোসেন। তবে হত্যা রহস্য উদঘাটনে বেশ কিছু নতুন তথ্য সংগ্রহ করতে পেরেছেন গোয়েন্দা পুলিশ।

মর্জিনা খাতুন বলেন, ‘চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি আমরা। এখন যেখানে আছি সেখান থেকে বাসা সরিয়ে নেওয়ার চিন্ত করছি। আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী থেকে বলা হয়েছে, জান্নাত যেন কিছুদিন স্কুলে না যায়।’

নদীর বড় বোন চম্পা খাতুন জানান, তাদের পরিবারে কোনো পুরুষ নেই। তাই দেখারও কেউ নেই। বিশেষ করে জান্নাতের কেউ নেই। মায়ের বয়স হয়েছে।

তিনি আরও জানান, জান্নাতকে তার বাবার কাছে বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে।

এদিকে মৃত্যুর আগে হত্যাকারীদের নাম বলে গেলেও পুলিশ একজন ছাড়া কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এর আগে তদন্ত কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, নদীর প্রাক্তন স্বামী রাজিবুল ইসলাম রাজিব ও তার বন্ধু মিলন তাদের নজরদারির মধ্যেই রয়েছে।

পাবনা সংবাদপত্র পরিষদ সভাপতি আবদুল মতীন খান বলেন, ঘটনার তিনদিন পরেও রাজিব ও মিলন গ্রেফতার না হওয়া দুঃখজনক। তিনি পুলিশকে আরও আন্তরিক হওয়ার জন্য বলেন।

সূত্র জানায়, নদীর সঙ্গে শিল্পপতি আবুল হোসেনের একমাত্র ছেলে রাজিবের বিয়ে হয় ২০১৬ সালে ৬ জুন। তবে কিছু দিন যেতে না যেতেই তার ওপর নির্যাতন শুরু হয়। এ নিয়ে পাবনা জজ কোর্টে মামলাও হয়।

পাবনা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা অরবিন্দ সরকার বলেন, নদীর পরিবারের নিরাপত্তার অভাব অমূলক। তাদের বাসায় সার্বক্ষণিক পুলিশ ও গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে। শিগগির হত্যা রহস্য উদঘাটিত হবে।

গত মঙ্গলবার রাতে পাবনার অনলাইন পোর্টাল দৈনিক জাগ্রত বাংলার সম্পাদক ও প্রকাশক এবং আনন্দ টিভির পাবনা প্রতিনিধি সুবর্ণাকে জেলা শহরের মজুমদারপাড়ায় তার ভাড়া বাসায় গিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে একদল দুর্বৃত্ত।