সাতক্ষীরার আম ইউরোপের পথে


758 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার আম ইউরোপের পথে
মে ১৯, ২০১৮ কৃষি ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

 

মনজুর কাদীর পলাশ ::
সাতক্ষীরার উৎপাদিত আম দেশের গন্ডি পেরিয়ে ইউরোপের বাজারে রওনা দিয়েছে। বিদেশে আম রফতানি উপলক্ষ্যে শনিবার সাতক্ষীরায় আয়োজন করা হয় কর্মশালা। ওই কর্মশালা শেষে বিদেশে আম রফতানির কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ মহসীন গাছ থেকে আম পাড়ার মধ্যদিয়ে আম রফতানির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।
সাতক্ষীরার চাষীরা এবারও বিষমুক্ত ও বালাইমুক্ত আম উৎপাদন করেছেন। দেশের চাহিদা মিটিয়েও বিদেশে সাতক্ষীরার মিষ্টি আমের চাহিদা রয়েছে। প্রথম পর্যায়ে বাজারে উঠছে সাতক্ষীরার হিমসাগর জাতের আম। এরপরই আসছে ল্যাংড়া ও আ¤্রপালি জাতের আম।


শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক কর্মশালায় এই তথ্য প্রকাশ করেন আয়োজকরা। তারা বলেন, এবার সাতক্ষীরার ৪১ শ’ হেক্টর জমিতে আমচাষ হয়েছে। এর থেকে উৎপাদন পাওয়া যাবে ৪০ হাজার মেট্রিক টন।
আয়োজকরা আরো বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজারে ১০০০ মেট্রিক টন হিমসাগর জাতের আমের চাহিদা রয়েছে। সাতক্ষীরা থেকে ২০০ মেট্রিক টন বিষ ও বালাইমুক্ত নিরাপদ আম ইউরোপে রফতানি শুরু হয়েছে।
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেনের সভাপতিত্বে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা মিলনায়তনে আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ মহসীন। এতে আরও বক্তব্য রাখেন উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ পরিচালক মো. আজহার আলি, অতিরিক্ত পরিচালক নিত্যরঞ্জন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মো. সাজ্জাদুর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু, মো. কৃষিবিদ মো. আনোয়ার হোসেন, সলিডারিড্যাড এর কান্ট্রি ডিরেক্টর সেলিম রেজা হোসেন , উপপরিচালক কাজী আবদুল মান্নান , উত্তরন পরিচালক মো. শহিদুল ইসলাম প্রমূখ।
কর্মশালা শেষে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বড়খামার গ্রামে গাছ থেকে হিমসাগর জাতের পাকা আম রফতানির জন্য সংগ্রহ উদ্বোধন করেন মহাপরিচালক মোহাম্মদ মহসীন। এ সময় তিনি বলেন, সাতক্ষীরার আম স্বাদে ও গন্ধে অতুলনীয়। বিশ্বের বাজারে এর চাহিদা রয়েছে। তিনি বলেন চাষীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে রফতানিযোগ্য আম উৎপাদনে কৃষি বিভিাগ ও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা সহায়তা করেছে।


উৎসবমুখর পরিবেশে সাতক্ষীরায় শুরু হয়েছে পাকা আম পাড়া। নানা জাতের বাহারি আমে ছেয়ে গেছে সাতক্ষীরার বাগান।
আয়োজকরা জানায়, ২০১৬ সালে ৩৭ মেট্রিক টন, ২০১৭ সালে ১২১ মেট্রিক টন আম ইউরোপের বাজারে পাঠানো হয়েছিল। চলতি বছর ২০০ মেট্রিক টন আম ইউরোপের বাজারে পাঠানো হবে। আর এজন্য সাতক্ষীরা জেলায় ৫০০ জন আম চাষিকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।
সূত্র আরো জানায়, ইতোমধ্যে ২০ মেট্রিক টন আম আগরাতে পাঠানো হয়েছে। আর ৪ মেট্রিক টন আম ইউরোপের পথে।
##