সাতক্ষীরার আশাশুনি ও কালিগঞ্জ উপজেলার নব-নির্বাচিত ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের শপথ গ্রহণ


446 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার আশাশুনি ও কালিগঞ্জ উপজেলার নব-নির্বাচিত ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের শপথ গ্রহণ
মে ১৮, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল আলম মুন্না:
সাতক্ষীরা জেলার ৭টি উপজেরার ৭৮টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে আশাশুনি ও কালিগঞ্জ উপজেলার ২৩ জন নবনির্বাচিত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের  শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়েছে।
বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টায় জেলা প্রশাসক মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মোঃ মহিউদ্দিন এই শপথ বাক্য পাঠ করান। এ সময় শপথবাক্য পাঠ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপ-পরিচালক স্থানীয় সরকার (ডিডিএলজি) এ,এন,এম, মঈনুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এ,এফ,এম এহতেশামূল হক, নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ কামরুল ইসলাম, আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম ও সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাড. আবুল কালাম আজাদ। নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের সাথে হাজার হাজার জনগণ এই কর্মসূচীতে অংশগ্রহন করেন আনন্দ উল্লাসের মধ্যে।

শপথবাক্য পাঠ অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক বলেন নির্বাচিত চেয়ারম্যানরাই সরকারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ যেখান থেকেই জনগণদের সবচেয়ে কাছে থেকে কাজ করার সুযোগ থাকে। জনগনের ম্যানডেটেই আপনারা আজ জনপ্রতিনিধি যাদের সমর্থনে আপনারা জনগনের কল্যানে কাজ করার ওয়াদাবদ্ধ হয়েছিলেন। সেই জনগনের কল্যানে আপনাদের সবসময় কাজ করতে হবে। জনগনের ভাল-মন্দে সুখে-দুঃখে তাদের পাশে থাকতে হবে। জনগনের অধিকার আদায়ে আপনাদের সচেষ্ট হতে হবে কারন আপনারাই তাদের পরম বন্ধু আপনাদের হাতেই রয়েছে অনেকের ভাগ্য।

বাল্যবিবাহ রোধ বর্তমান সরকারের অঙ্গিকার সেই অঙ্গিকারকে বাস্তবায়নের জন্য জনপ্রতিনিধিদের সবচেয়ে ভুমিকা রাখতে পারে। সেই যায়গা থেকে বাল্য বিবাহ রোধে চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ বিবাহ রেজিষ্টার জোরালো ভুমিকা আশা করছি। তা না’হলে আমরা জেলা প্রশাসন আপনাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করবো। এরাকার উন্নয়নে বরাদ্ধের প্রতি না তাকিয়ে নিজস্ব উদ্যোগেও অনেক ভাল ভাল কাজ করা সম্বব যেটা আপনারা অনেকেই করে থাকেন। এলাকার বেশির ভাগ কাজ এনজিও রাই করে থাকে সেখানে চেয়ারম্যানদের কোন ভুমিকা থাকেনা এপ্রশ্নে জেলা প্রশাসক বলেন জিও-এনজিও সমন্বয় করে কাজ করতে হবে তবে তাদের কাজে আপনারা খবরদারি করলে চলবে না । এবিষয়ে আপনাদের কাজ কর্মে খোজ খবর নেওয়ার অধিকার আছে। পরিশেষে পরিবেশ রক্ষায় জেলা প্রশাসনের পক্ষে প্রত্যেক নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিকে ১টি ফলজ ও ১টি বনজ বৃক্ষের চারা বিতরণ করেন।