কলারোয়ায় মেয়ের শ্লিলতাহানীর বিচার না পেয়ে দুই শিশু সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা !


308 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় মেয়ের শ্লিলতাহানীর বিচার না পেয়ে দুই শিশু সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা !
এপ্রিল ১, ২০২১ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার লাঙলঝাড়া গ্রামে একই কক্ষ থেকে মায়ের ঝুলন্ত লাশ ও তার দুই শিশু সন্তানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে কোন এক সময়ে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার সকালে ঘরের দরজা বন্ধ দেখে বাড়ির লোকজনের সন্দেহ হয়। পরে দরজা ভেঙে লাশ তিনটি উদ্ধার করে পুলিশ। মেয়ের শ্লিলতাহানীর ঘটনার বিচার না পেয়ে মা মাহফুজা খাতুন দুই সন্তানকে হত্যার পর নিজে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবির জানান, ঝুলন্ত গৃহবধূর মাহফুজা খাতুন লাঙলঝাড়া গ্রামের শিমুল হোসেনের স্ত্রী। তার দুই মৃত শিশুর নাম মাহফুজ রহমান (৯) ও মোহনা (৫)। মাহফুজা খাতুন গলায় শাড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারনা করা হচ্ছে। এর আগে তিনি তার দুই সন্তানকে শ্বাস:রোধ করে হত্যা করেছে বলে পুলিশের ধারনা। তিনি আরও জানান, তার স্বামী বাগেরহাটে থাকেন। বেশ কিছুদিন ধরে স্বামীর সাথে মাহফুজার পারিবারিক কলহ চলছিলো। পারিবারিক কলহের জের ধরে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অন্য কোন ঘটনার আছে কিনা তাও পুলিশ খতিয়ে দেখছে । ঘটনা জানার পর বাগেরহাট থেকে তার স্বামী বাড়িতে এসেছে। স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে কি কারনে এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে তা এখুনি নিশ্চিত করে বলা যাবে না। লাশের ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর বিষয়টি জানাযাবে। লাশ উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শিমুল হোসেনের পিতা আব্দার আলী জানান, তিন দিন ( গত সোমবার) আগে খেলা করার সময় স্থানীয় লাল্টুর ছেলে হৃদয় (১৪) শিশু মোহনাকে যৌন নির্যাতন করে। মোহনা বিষয়টি বাড়িতে এসে তার মা মাহফজা খাতুনকে জানালে মা মাহফুজা খাতুন স্থানীয় ইউপি সদস্য সাফিজুলের কাছে শ্লিলতাহানীর বিচার চান। তখন সাফিজুুল সামনে নির্বাচন উল্লেখ করে কয়েকদিন পরে বিচারের আশ্বাস দেন। বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামকে জানালে তিনি মামলার পরামর্শ দেন। পরে মাহফুজা আমার কাছে (আব্দার আলীর কাছে ) মামলা করার কথা বললে আমি বলি, আমরা গরীব মানুষ, মামলার খরচ চালাবো কিভাবে। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি (আব্দার আলী) কাজে গেলে মাহফুজা দুই সন্তানকে মেরে নিজেও আত্মহত্যা করেছে বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে কলারোয়া থানার ওসি মীর খায়রুল কবির জানান, শ্লিলতাহানীর ঘটনার কথা এখনো আমরা জানতে পারেনি। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের সাথে কথা বলার জন্য একাধিকবার তার ব্যবহ্নত সেল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

#