সাতক্ষীরার কলারোয়ায় শান্তিপূর্ন পরিবেশে পিইসি পরীক্ষা শুরু


492 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় শান্তিপূর্ন পরিবেশে পিইসি পরীক্ষা শুরু
নভেম্বর ১৮, ২০১৮ কলারোয়া ফটো গ্যালারি শিক্ষা
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান ::
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় শান্তিপর্ণ পরিবেশে ক্ষুদে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হয়েছে। রোববার ইংরেজি বিষয়ের মধ্য দিয়ে দেশের সর্ববৃহৎ এ পরীক্ষা কলারোয়া উপজেলার ১৩টি কেন্দ্রে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনি ও ১২টি কেন্দ্রে মাদরাসার ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোজাফ্ফার হোসেন জানান- পৌরসভাসহ উপজেলার ১৩টি কেন্দ্রে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ছিলো ৩ হাজার ৭১৮জন। এর মধ্যে ছাত্র ছিলো ১ হাজার ৭৫৩জন ও ছাত্রী ১ হাজার ৯৬৫ জন। প্রথম দিন পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ৩ হাজার ৬৬৮ পরীক্ষার্থী। অনুপস্থিত ৫০ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্র ৩৮জন ও ছাত্রী ১২জন।
এদিকে মাদরাসার ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৩০৩ জন ছাত্র ও ২০৭ ছাত্রীসহ সর্বমোট ৫১০ পরীক্ষার্থীর অংশ নেয়ার কথা থাকলেও উপস্থিত ছিলো ৪২২জন। অনুপস্থিত ৮৮জনের মধ্যে ছাত্র ৫৯ জন ছাত্র ও ছাত্রী ২৯জন।
উপজেলার পরীক্ষা কেন্দ্র গুলো হলো- কলারোয়া সরকারি জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুল, জয়নগর বদরুন্নেছা গালর্স হাইস্কুল, জালালাবাদ দাখিল মাদরাসা, কয়লা হাইস্কুল, লাঙ্গলঝাড়া কেএল হাইস্কুল, কেঁড়াগাছির বোয়ালিয়া হাইস্কুল, সোনাবাড়িয়া হাইস্কুল, চন্দনপুর হাইস্কুল, কেরালকাতার সিংগা হাইস্কুল, কাজিরহাট হাইস্কুল, কুশোডাঙ্গা হাইস্কুল, দেয়াড়ার খোরদো হাইস্কুল ও বামনখালী হাইস্কুল।
সরেজমিন কয়েকটি পরীক্ষা কেন্দ্র গিয়ে দেখা যায়- শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের সার্বিক প্রচেষ্টায় শান্তিপূর্ণ, সুষ্ঠু ও মনোরম পরিবেশে পরীক্ষায় অংশ নেন কোমলমতি পরীক্ষার্থীরা। পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে শিক্ষকদের পাশাপাশি উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা দায়িত্বে ছিলেন। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে পুলিশ মোতায়েন ছিলো।
পরীক্ষা শেষে কলারোয়া পাইলট হাইস্কুল কেন্দ্রের পরীক্ষার্থী ফুয়াদ আল-আবরার জানান- ‘সুন্দর পরীক্ষা দিয়েছি।’
লাঙ্গলঝাড়া কেন্দ্রে পরীক্ষার হলে দায়িত্বে থাকা শিক্ষক আসাদুল ইসলাম জানান- ‘বাচ্চাদের কোন ভীতি ছাড়াই সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশে প্রথমদিনের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।’
উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার শোভা রায় জানান- ‘বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন পরীক্ষার্থীদের ৩০মিনিট অতিরিক্ত সময় বরাদ্দ করা হয়েছে। আগামি ২৬নভেম্বর সমাপনী পরীক্ষা শেষ হবে।’