সাতক্ষীরার চাঞ্চল্যকর আলাউদ্দীন হত্যা মামলার স্বাক্ষ্য গ্রহণ


703 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার চাঞ্চল্যকর আলাউদ্দীন হত্যা মামলার স্বাক্ষ্য গ্রহণ
এপ্রিল ১৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আসাদুজ্জামান ::
দীর্ঘ দিন পর আবারও চাঞ্চল্যকর শহিদ স ম আলাউদ্দিন হত্যা মামলার স্বাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়েছে। নিহতের ৩য় কন্যা লায়লা পারভীন সেঁজুতি মঙ্গলবার আদালতে হাজির হয়ে এ স্বাক্ষ্য প্রদান করেন।
উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ১৯ জুন সাতক্ষীরা সদর থানা থেকে মাত্র ১০ হাত দুরে দৈনিক পত্রদূত অফিসে কর্মরত অবস্থায় রাত ১০টার পর দুস্কৃতিকারীদের গুলিতে প্রাণ হারাণ দৈনিক পত্রদূতের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক বীর মুক্তিযোদ্ধা স ম আলাউদ্দিন। চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলার বিচার কার্যক্রম উচ্চ আদালতের নির্দেশে দীর্ঘদিন স্থগিত থাকে। ২০১২ সালে সাতক্ষীরা দায়রা জজ আদালতে সেশন ৫৭/৯৭ (দায়রা), জিআর ২৪৭/৯৬ মামলাটির বিচার কার্যক্রম শুরু হয়।
মামলাটির ৩৮ জন সাক্ষীর মধ্যে ইতিপূর্বে ১৬ জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করেছে আদালত। মারা গেছেন বেশ কয়েকজন সাক্ষী। লায়লা পারভীন সেঁজুতি এ মামলায় ১৭তম সাক্ষী হিসেবে সাক্ষ্য প্রদান করেন।
এ সময় তিনি আদালতে বলেন, “আসামি আব্দুস সবুর, খলিলুল্লাহ ঝড়–, নগরঘাটার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দু রউফ, সাইফুল্লাহ কিসলু(মৃত), মমিনউল্লাহ মোহন, এস্কেন, শফিউর রহমান শফি, সাইফুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান ও আবুল কালাম পরস্পর যোগসাজশে ষড়যনন্ত্রমূলকভাবে পরিকল্পিতভাবে আমার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা স. ম. আলাউদ্দীনকে হত্যা করে।”
সাতক্ষীরা জজ কোর্টের পিপি এড. ওসমান গণি জানান,  স্বাক্ষীর শুনানি হলেও জেরার জন্য আসামি পক্ষ সময় প্রার্থনা করলে সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ জোয়ার্দ্দার মো: আমিরুল ইসলাম সময় মঞ্জুর করেন। আগামী ২৭ এপ্রিল তিনি এ মামলার পরবর্তী দিন ধার্য্য করেন।
এ সময় রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুলী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র আইনজীবী এড. এস এম হায়দার, পাবলিক প্রসিকিউটর এড. ওসমান গণি ও অতিরিক্তি পিপি এড. ফাহিমুল হক কিসলু।
আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন এড. আব্দুল মজিদ, এড. লুৎফর রহমান, এড. জহুরুল হক, এড. আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ।