সাতক্ষীরার জনগণকে নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে আসার আহবান জানালেন পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর


603 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার জনগণকে নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে আসার আহবান জানালেন পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর
মার্চ ২০, ২০১৬ কলারোয়া তালা ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

এম কামরুজ্জামান :
সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর (পিপিএম বার) বলেছেন, সাতক্ষীরার ৭৮ টি ইউনিয়নে আগামী ২২ মার্চ ইউপি নির্বাচন অবাধ,সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। কোন ধরনের কারচুপি হবে না। জনগন যাতে নিবিঘেœ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে যাকে ইচ্ছে তাকেই ভোট দিতে পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে ইতিমধ্যে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। যারা ভোট কারচুপি বা ভোট ছিনিয়ে নেয়ার সপ্ন দেখছেন তাদের উদ্দেশ্য সফল হবে না উল্লেখ করে সুলিশ সুপার বলেন, ভোট কারচুপি যারা করবে বা করার চেষ্টা করবে তাদের সম্পর্কে তথ্য পেলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তিনি জনগনকে বিগত সাতক্ষীরা পৌরসভা নির্বাচনের মতো নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে আসার জন্য আহবান জানান।

রোববার বিকেলে সাতক্ষীরা পুলিশ লাইনস্ মাঠে সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফিং কালে তিনি এসব কথা বলেন। সকাল থেকেই সেখানে পুলিশ বাহিনীর প্রায় সাড়ে ৩ হাজার সদস্যের ভোট কেন্দ্রে তারা কি ভাবে দায়িত্ব পালন করবেন সে ব্যাপারে ব্রিফিং চলছিল। পুলিশ ব্রিফিং- এর মাঝ পথে সংক্ষিপ্ত প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করেন সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর।

20160320_173949

প্রেস ব্রিফিং-এ সাংবাদিকদের মধ্যে বিভিন্ন পশ্নছুড়ে দেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক এম. কামরুজ্জামান, সিনিয়র সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল।

পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নউত্তরে বলেন, আগামী ২২ মার্চ ইউপি নির্বাচনে সাতক্ষীরায় ভোট কারচুপির কোন ধরণের সম্ভাবনা নেই। জনগন নির্বিঘেœ ভোট কেন্দ্রে এসে যাকে খুশি তাকেই ভোট দিতে পারবেন। তিনি এ ব্যাপারে গনমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে পূর্ণ নিশ্চয়তা প্রদান করেন। তিনি বলেন, ২২ মার্চ উৎসবমুখর পরিবেশে মানুষ ভোট দিয়ে নিরাপদে বাড়িতে যাবে। তিনি বলেন, সাংবাদিকদের মাধ্যমে জনগনকে নিশ্চয়তাপূর্ণ এই ম্যাসেস দেওয়ার জন্যই এই প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করা হয়েছে।

996744_1738032726429098_2747165383190632718_n

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোথাও কোন ধরণের বিশৃঙ্খলা ঘটলে যাতে সাংবাদিকরা তাৎক্ষনিক সঠিক তথ্য পায় সে ব্যাপারে পুলিশের পক্ষ থেকে তথ্য কর্মকর্তা নিয়োগ করা হবে। ভোটের দিন যাতে সংবাদপত্রবাহী পরিবহন নিবিঘেœ চলাচল করতে পারে সে ব্যাপারে পুলিশকে বিশেষ নির্দেশনা প্রদান করা হবে।

তালা ও কলারোয়া উপজেলায় পাশ্ববর্তী জেলা যশোর থেকে বেশ কিছু সন্ত্রাসী বাহিনী ইতিমধ্যে ভোট ছিনতাই করার জন্য প্রবেশ করেছে এমন তথ্যের কোন সত্যতা আছে কি-না জানতে চাইলে পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর বলেন, পুলিশের কাছে এ ধরনের কোন তথ্য এখনও আসেনি। তবে পুলিশ এ ধরনের কোন বাহিনী বা সন্ত্রাসী ভিতরে প্রবেশ করেছে কি-না তা খতিয়ে দেখবে। যদি কোন সন্ত্রাসী বা বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা প্রবেশ করে থাকে তাদেরকে তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।