সাতক্ষীরার নবারুন স্কুলকে কমিউনিটি সেন্টার বানিয়ে বৌ ভাতের অনুষ্ঠান !


1874 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার নবারুন স্কুলকে কমিউনিটি সেন্টার বানিয়ে বৌ ভাতের অনুষ্ঠান !
জানুয়ারি ২২, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
এবার শহরের নবারুন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়কে কমিউনিটি সেন্টার বানিয়ে বৌ ভাতের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করলেন এক দম্পতি। শুক্রবার বিদ্যালয় প্রাঙ্গন ও সকল ক্লাস রুম ব্যবহার করে  বৌ ভাতের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়।

12524083_10208926349224521_2943597781996873502_n

সংশ্লিস্টরা জানান, অনুষ্ঠানের খরচ বাঁচাতে ঐ স্কুলের সহকারী শিক্ষক মঞ্জুরুল ইসলামের এর ঢাকায় চাকুরিরত পুত্রের বৌ ভাত অনুষ্ঠান করা হয়। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শ্রেণি কক্ষ দখল করে জেলায় বৌভাতের অনুষ্ঠানে শিক্ষক সমাজের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বৌভাতের অনুমতি দেওয়ায় স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছে।

12573044_10208926351504578_1092087556058254520_n

সূত্র জানায়, ১৫ জানুয়ারি ঢাকায় শহরের বড় বাজারস্থ ও যশোরের একটি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাজমুল হকের বড় কণ্যার সাথে নবারুন স্কুলের সহকারী শিক্ষক মঞ্জুরুল ইসলামের বড় পুত্রের বিবাহ হয়। বিবাহের এক সপ্তাহ পরে শহরের নবারুন উচ্চ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যলয় ব্যবহার করে বৌ ভাতের আয়োজন করে। এ ক্ষেত্রে পূর্ণাঙ্গ সহায়তা করে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক। সূত্র আরো জানায়, কমিউনিটি সেন্টারের খরচ বাঁচাতে মঞ্জুরুল ইসলাম স্কুলে বৌ ভাতের আয়োজন করে।

yyyy

আয়োজনে স্কুলের চত্ত্বরে বড় প্যান্ডেল করা হয়।

খাওয়া ও অন্য কাজের জন্য শ্রেণিকক্ষ ব্যবহার করা হয়। কয়েকজন শিক্ষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, স্কুলের শ্রেণি কক্ষ ব্যবহার ব্যক্তি পর্যায়ে বৌ ভাতের অনুষ্ঠান দেশে এটাই প্রথম। এর ফলে অন্যরা উৎসাহিত হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কমিউনিটি সেন্টার বানানো যায় না। তারা আরো বলেন, যারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে কমিউনিটি সেন্টার বানাতে চাই তাদের শাস্তি হওয়া প্রয়োজন। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেকের মোবাইলে ফোন দিলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।