সাতক্ষীরার ভোমরা কাস্টমস্ অফিসের ভেতর হাঁটু পানি । গুরুত্বপূর্ণ ফাইলপত্র নষ্ট


303 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার ভোমরা কাস্টমস্ অফিসের ভেতর হাঁটু পানি । গুরুত্বপূর্ণ ফাইলপত্র নষ্ট
আগস্ট ১, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

মনিরুজ্জামান সবুজ, ভোমরা থেকে :
সাতক্ষীরার ভোমরা কাস্টমস্ অফিসের ভেতর হাঁটু পানি জমেছে। অফিসের গুরুত্বপূর্ণ ফাইলপত্র পানিতে ভিজে নষ্ট হয়েগেছে। বর্ষার পানির জমার কারণে শনিবার সকাল থেকেই কাস্টমস্ অফিসের কোন কর্মকর্তা-কর্মচারী অফিসের ভিতর প্রবেশ করতে পারেনি বলে জানাগেছে। ফলে অফিসের কার্যক্রম কার্যত: অচল হয়ে পড়েছে।
ভোমরা কাস্টমস্ শুল্ক স্টেশনের  সহকারী কমিশনার শরীফ আল আমিন ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, শনিবার সকালে তিনি অফিসে গিয়ে দেখতে পান পুরো কাস্টমস্ চত্বরে পানি জমেগেছে। সহকারী কমিশনারের রুম এবং দুই জন সুপারের রুমের ভিতর হাঁটু পানি। শুক্রবার রাতের ভারী বর্ষনের কারণে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তিনি জানান। পানি নিস্কাশনের জন্য নেই কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা। ফলে পরিস্থিতি জটিল আকার ধারন করেছে।
ভোমরা শুল্ক স্টেশনের কাস্টমস সুপার লুৎফুল কবির ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, অফিসে কাজ করার মতো কোন পরিবেশ নেই। কাস্টমস অফিসের  প্রতিটি রুমে বর্ষার পানি জমেছে। অফিসের গুরুত্বপূর্ণ ফাইলপত্র ভিজে নষ্ট হয়েগেছে। উদ্ধর্তন মহলকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।
এদিকে, ভোমরা স্থল বন্দর দেশের গুরুত্বপূর্ণ একটি বন্দর হলেও এই বন্দরের অবকাঠামগত কোন উন্নয়ন হয়নি। কাস্টমস ভবন নির্মানের জন্য ৩ একর জমি থাকলেও সেখানে জরাজীর্ণ টিনের ছাউনি কয়েকটি রুম ছাড়া আর কিছুই নেই। এসব রুমের দরজা-জানালা নষ্ট। দেয়াল খসে খসে পড়ছে। কোন ভাবে জোড়াতালি মেরে ভবনটি দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে। একটু বর্ষা নামলেই রুমের ভিতর পানি জমে। তৈরী হয় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ। কয়েক বছর আগে ভবন নির্মানের জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হলেও নানা জটিলতার কারণে সেই প্রকল্পটি লাল ফিতায় আটকানো।
স্থানীয় ব্যবসায়িরা জানান, অবকাঠামগত উন্নয়ন না হওয়ায় দেশের অত্যন্ত সম্ভাবনাময় এই বন্দরে ব্যবসার কোন সুষ্টু পরিবেশ সৃষ্টি হচ্ছে না। জরুরী ভিত্তিতে কাস্টমস ভবন নির্মান না করা হলেও একদিকে ব্যবসায়িরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে অন্য দিকে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হবে। তারা অবিলম্বে কাস্টমস ভবনসহ অন্যান্য অবকাঠামগত উন্নয়নের দাবি জানিয়েছে।