সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে করোনা সনাক্তে মেডিকেল টিমের বেহালদশা


310 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে করোনা সনাক্তে মেডিকেল টিমের বেহালদশা
মার্চ ১৬, ২০২০ সাতক্ষীরা সদর স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

॥ এম কামরুজ্জামান, ভোমরা বন্দর থেকে ফিরে ॥
করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরে স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক গঠিত মেডিকেল টিমের তেমন কোন সক্রিয়তা চোখে পড়ছে না। ভারত থেকে আগত পাসপোর্টযাত্রীদের শরীর পরীক্ষা করার জন্য সাতক্ষীরা স্বাস্থ্য বিভাগ খাতা-কলমে ২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে নিয়োগ দিলেও বাস্তবতা ভিন্ন। সেখানে মাত্র ৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী কাজ করছে।
শুধু তাই নয়, শতভাগ পাসপোর্টযাত্রী ও ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভার-হেলপারের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য সরকারের কঠোর নির্দেশনা থাকলেও তা একেরাবেই মানা হচ্ছে না । অধিকাংশ ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপার স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়াই ভোমরা বন্দরে অবাধে আসা-যাওয়া করছে।
আজ সোমবার বিকাল সাড়ে ৩ টায় ভোমরা স্থল বন্দরে সরেজমিন গিয়ে এসব চিত্র দেখা গেছে।
সেখানে গিয়ে দেখাযায়, ৩০ থেকে ৪০ জন ভারত থেকে আগত পাসপোর্ট যাত্রী লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। সেখানে নিয়োজিত মাত্র ৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী স্বাস্থ্য বিভাগের নির্ধারিত ফরম পুরণ করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। তাদেও তেমন কোন অভিজ্ঞ না থাকায় এক-একটি পাসপোর্ট যাত্রীর ফরম পুরণ করতে ৫ থেকে ১০ মিনিট সময় লাগছে। এতে পাসপোর্ট যাত্রীরা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছে। আর ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভার-হেলপাররা স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়াই অবাধে দু’দেশে প্রবেশ করছে।
ভোমরা স্থল বন্দর ইমিগ্রেশনের ভিতরেই মেডিকেল ক্যাম্প বসানো হয়েছে। মেডিকেল ক্যাম্পে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জনবল না থাকায় ইমিগ্রেশনের ভিতরের পরিবেশ এলোমেলো অবস্থা। পাসপোর্ট যাত্রীদের ভীড় সামলাতে ইমিগ্রেশন পুলিশও হিমশিম খাচ্ছে। বাধ্যহয়ে পুলিশ স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে সাহায্য করছে।
ভোমরা ইমিগ্রেশন ওসি বিশ্বজিৎ জানান, মাত্র তিন জন স্বাস্থ্যকর্মী ভোমরাতে কাজ করছে। এতো অল্প সংখ্যক স্বাস্থ্যকর্মী দিয়ে কাজ করা অসম্ভব হয়ে পড়ছে। স্বাস্থ্য বিভাগের জনবল বাড়ানো জরুরী হয়ে পড়েছে। তা না হলে ইমিগ্রেশনের ভিতরের পরিবেশ ঠিকরাখা কঠিক হয়ে পড়ছে।
সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা: হুসাইন শাফায়াত গত ১২ মার্চ এই প্রতিবেদককে বলেন, ভোমরা বন্দর দিয়ে যারাই প্রবেশ করবে তাদের সবার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। উপরের নির্দেশনা অনুযায়ী ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপারদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। এজন্য ভোমরা বন্দরে ২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ করা হয়েছে।
আজ সোমবার সরেজমিন গিয়ে এই প্রতিবেদক মুঠোফোনে সাতক্ষীরার সিভিল সার্জন ডা: হুসাইন শাফায়াতের সাথে কথা বললে তিনি ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে বলেন ‘সেখানে ২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে নিয়োগ করা হয়েছে। কিন্তু কেনো সেখানে মাত্র তিন জন কাজ করছে তা বুঝতে পাচ্ছি না। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে’।