সাতক্ষীরার মোড়ে মোড়ে বিক্রি হচ্ছে টক মিষ্টি স্বাদের লটকন ফল


202 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার মোড়ে মোড়ে বিক্রি হচ্ছে টক মিষ্টি স্বাদের লটকন ফল
জুলাই ৩০, ২০১৯ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আজিজুল ইসলাম ::

সাতক্ষীরা শহরের মোড়ে মোড়ে চলছে লটকন ফল বিক্রির ধুম। বিক্রেতারা কেউবা লটকন ফল বিক্রি করছে ভ্যানে করে আবার কেউবা বসেছে ঝুড়িতে নিয়ে। আবার কেউবা ঝুলিয়ে রেখেছে বাঁশের আড়ায়। সাইজ অনুযায়ী ১৫০-২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে লটকন ফল। শহরে চলার পথে এই লটকন ফল নিয়ে বাড়ি ফিরছেন অনেকে। ক্রেতারা সার্বক্ষণিক ভিড় জমাচ্ছে লটকন ফলের দোকানগুলোতে। আর লটকন ফল বিক্রি করে ব্যস্ত সময় পার করছেন শহরের অধিকাংশ ফল ব্যবসায়ীরা।
সরজমিনে শহরের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখা যায়, সাতক্ষীরা সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়,সাতক্ষীরা সরকারী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, সতক্ষীরা পুলিশ লাইন স্কুল সহ শহরের প্রায় সকল স্কুলের সামনে ও শহরের পোস্ট অফিস মোড়, পাকাপোল মোড়, নিউমার্কেট মোড়, বড়বাজারের মোড়, হাটের মোড়, নারকেলতলা মোড়, খুলনা রোড মোড়, ডাক বাংলা মোড় সহ বিভিন্ন মার্কেটের সামনে বিক্রেতারা লটকন ফলের পসরা সাজিয়ে নিয়ে বসেছেন। কেউবা সাজিয়ে রেখেছেন ঝুড়িতে আবার কেউবা বিক্রি করছেন ভ্যানে করে। আর ক্রেতারা সেখানে ভিড় জমাচ্ছেন লটকন ফল কেনার জন্য। শিশু কিশোররাই মূলত এই ফলের মূল গ্রহক। গড়ে ১৫০-২০০টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে সুস্বাদু ও রসালো মৌসুমী ফল। দেখতে অনেকটা ডুমুরের মত লাগলেও খেতে টক ও হালকা হোলদে রঙের এই ফল। আর খোসা ছাড়াতেই রসালো টক স্বাস, ভবতেই জিভে জল এসে যায়। এর ভিতর সাধারণত তিন টি বিজ সম্বলিত স্বস থাকে। ভিটামিন সি এর অনন্য কারখানা এই ফল। এখন যে হারে আমাদের চোখের অজান্তে বিদেশি ফলে ফরমালিন দেয়া হচ্ছে সে তুলনায় আমাদের দেশি এই ফল পুষ্টি গুনে ও স্বাদে অসাধারণ। আর এই ফলে ফরমালিন দেয়া লাগে না ফল ব্যবসায়ীদের কারণ এই ফল গাছ থেকে পাড়ার পরও অনেক দিন তাজা থাকে আর দামও অনেক কম। শহরে চলার পথে বা মার্কেটে শপিং করতে এসে লটকন ফল কিনে বাড়ি ফিরছেন অনেকেই। শিশুরাও লটকন ফল দেখে বাবা-মাকে বলছে এটি কেনার জন্য। বাবা-মাও শিশুদেরকে লটকন ফল কিনে দিয়ে তাদের আবদার পূরণ করছে। এই বিষয়ে জানতে, শহরের পাঁকা পোলের মোড়ে লটকন ফল বিক্তেতা আক্তারুল ইসলাম জানান তারা গাছ কিনে রেখেছেন শহরের বিভিন্ন অংশে। এছাড়া গ্রাম থেকেও অনেকে লটকন ফল কিনে নিয়ে আসে শহরে বিক্রি করে তারা। অনেক ব্যবসায়ী আবার প্রত্যান্ত গ্রামে গাছ কিনে রেখেছেন এই মৌসুমী ফলের ব্যবসা করার জন্য। এই ফলের চাহিদাও বেশ ভাল। গাছের ফলন ভেদে ৮০০০ – ২০০০০ টাকায় এক একটা গাছ কিনেছেন তারা। সাম্প্রতিক সময়ে লটকন ফল কেনা বেঁচা শুরু হওয়ায় অনেকের মধ্যে নতুন করে গাছ লাগানোর প্রবনতা বেড়েছে। রসুলপুর এলাকার লটকন ফল গাছের মালিক শহিদুল ইসলাম বলেন এক সময় এই গাছের ফল বিক্রিতো দূরের কথা কেউ খেত না,্আর এখন তা গাছে হওয়ার আগে গাছ বিক্রি হয়ে যায়। পাঁকা পুলের মোড়ে লটকন ফল কিনতে আসা শহরের রইচপুর এলাকার বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম বলেন, “২০০ টাকা কেজি দরে ১কেজি লটকন ফল কিনেছি। এটি রসালো ও সুস্বাদু একটি ফল। ছোট-বড় সকলের ফলাটি খেতে পছন্দ করে। আমার পরিবারের সবাই আনন্দের সাথে এটি খেয়ে থাকে।”দাম ও কম স্বাদও ভাল তাছাড়া দেশি ফল বিষ মুক্ত তাই আমার ও খুব পছন্দ।

#